kalerkantho


শেরপুরে আকস্মিক পরিবহন ধর্মঘটে যাত্রীদের ভোগান্তি

শেরপুর প্রতিনিধি    

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:০০



শেরপুরে আকস্মিক পরিবহন ধর্মঘটে যাত্রীদের ভোগান্তি

বাসচালক জামির হোসেনের মুক্তির দাবিতে শেরপুরে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে পরিবহন ধর্মঘট চলছে। সকাল থেকে প্রতিটি বাস কাউন্টারে তালা ঝুলিয়ে শ্রমিকরা এ কর্মসূচি পালন করছে। আকস্মিক এ পরিবহন ধর্মঘটে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা। অনেকে বাসস্ট্যান্ডে উপস্থিত হয়ে পরিবহন না পেয়ে ভোগান্তিতে পড়েছে। কেউ কেউ ঝুঁকি নিয়ে বিকল্প পন্থায় গন্তব্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন।

শেরপুরে প্রতিটি বাসস্ট্যান্ডে শত শত যাত্রীদের যানবাহনের অপেক্ষায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। কেউ কেউ সিএনজি অটোরিকশা, ইজিবাইকে গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করলে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পরিবহন শ্রমিকরা সেসব সিএনজি অটোরিকশা, ইজিবাইক আটকে যাত্রীদের নামিয়ে দেয়। অনেকে আবার মাইলের পর মাইল হেঁটে রওনা হন গন্তব্যের পথে।

পরিবহন শ্রমিকরা জানায়, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শেরপুর জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন অনির্দিষ্টকালের এ পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয়। ধর্মঘট সফল করতে পরিবহন শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে জেলা শহর থেকে সব ধরনের বাস-মিনিবাস ও ট্রাক চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে শেরপুর থেকে ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলাগামী দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

বাসস্ট্যান্ডগুলোতে শ্রমিকরা সংঘবদ্ধ হয়ে মিছিল করতে থাকে।

আদালতের রায়কে উপেক্ষা করে ধর্মঘট এবং কর্মবিরতি পালন করায় ক্ষোভ জানিয়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। তারা বলেন, এ সিদ্ধান্ত আদালত অবমাননার শামিল। সরকার ও বিচার বিভাগকে এ ব্যাপারে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আহ্বান তাদের। শেরপুর জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মস্ত জানান, আমরা কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ পরিবহন ধর্মঘট পালন করিছ। কেন্দ্রীয় নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত শেরপুর থেকে কোনও ধরনের যানবাহন চলাচল করবে না।

প্রসঙ্গত, চলচ্চিত্র পরিচালক তারেক মাসুদ ও ক্যামেরা পারসন মিশুক মুনীর ২০১১ সালের ১৩ আগস্ট মানিকগঞ্জের শিবালয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন। ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায়ে সম্প্রতি বাস চালক জমির উদ্দিনের কারাদণ্ডের প্রতিবাদে পরিবহন শ্রমিকরা এ ধর্মঘটের ডাক দেয়।

 


মন্তব্য