kalerkantho


কেরানীগঞ্জে ব্যবসায়ীর হাত-পা বাঁধা জবাই করা লাশ উদ্ধার

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধিঃ   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৬



কেরানীগঞ্জে ব্যবসায়ীর হাত-পা বাঁধা জবাই করা লাশ উদ্ধার

কেরানীগঞ্জে পুরাতন কম্পিউটার ব্যবসায়ী মোঃ এমরান হোসেন (৩৫) এর মুথ ও হাত-পা বাঁধা জবাই করা লাশ উদ্ধার করেছে থানা মডেল থানা পুলিশ। আজ রবিবার সন্ধ্যায় মডেল থানাধীন শাক্তা ক্রাউন মেলামাইন কারখানার সামনে কাকালিয়া এলাকা থেকে এমরানের লাশ উদ্ধার হয়। পরে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিহতের বড় ভাই মোলুমিয়া বলেন, তাদের গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার লাখাই থানার কাটিহারা এলাকায়। তার পিতার নাম মৃত সুরত আলী। ছোট ভাই এমরান পুরাণ ঢাকার হোসনি দালান মার্বেল গলি এলাকায় থেকে পুরাতন কম্পিউটারের ব্যবসা করতেন। শনিবার হোসনি দালান মাসজিদে মাগরিবের নামায আদায় করেন। এরপর সে কোন এক জায়গা থেকে বেশ কিছু মাল ক্রয় করার কথা বলে সাথে করে পঞ্চাশ হাজার টাকা নিয়ে রিক্সাযোগে রওনা দেয়।  
এরপর আমার ভাজিতা শেখ মোঃ জুয়েল রাত ৮টার সময় এমরানকে ফোন করলে তার নাম্বার বন্ধ পায়। এরপর সে আর রাতে বাড়ি ফিরে আসে নাই। আমরা অনেক জায়গা খোজাখুজি করে রাতে ঘুমিয়ে পড়ি।

রবিবার সকালে যে যার কাজে চলে যাই। রবিবার সন্ধ্যার পর পুলিশের ফোন পেয়ে আমরা রাত সাড়ে ৯টায় কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় এসে আমার ভাই এমরানের লাশ শনাক্ত করি। নাভা (১১), শোভা (৬ মাস) দুই কন্যা সন্তান ও স্ত্রী হালিমা গ্রামের বাড়িতে বসবাস করে।

নিহতের ভাতিজা সাইফুল হোসেন বলেন, এমরান কাকা, জুয়েল, আব্দুল্লাহসহ ৬জন আমরা হোসনি দালান মার্বেল গলিতে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকি। শনিবার এমরান কাকা চরমোনাই মাহফিলে যাওয়ার কথা। কিন্তু বিকেলে হঠাৎ একটি ফোন পান যে কিছু মাল আছে। আমরা সবাই পুরাতন কম্পিউটারের ব্যবসা করি। একজনের মালের খবর অন্যকে আমরা দেই না। যার কারণে এমরান কাকাও কোথা থেকে মাল আনতে যাচ্ছে কাইকে কিছু বলেন নাই। হোসনি দালান মসজিদে মাগরিবের নামায পড়ে চলে যায়। এরপর রাতে তাকে যতবার ফোন করেছি ততবারই তার ফোন বন্ধ পেয়েছি।  

এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকের মুহাম্মদ যুবায়ের জানান, প্রথমে আমরা যুবকটিকে অজ্ঞাত হিসাবে উদ্ধার করি। পরে তার পকেটে থাকা ভিজিটিং কার্ড থেকে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে তার পরিচয় উদ্ধার করি। পরে তার স্বজনরা রাত সাড়ে ৯টায় থানায় এসে লাশ শনাক্ত করেন। কারা এ হত্যা কাণ্ডের সাথে জড়িত এখনো জানা যায়নি। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে খতিয়ে দেখা হবে। তবে ধারণা করা হচ্ছে এ হত্যার পিছনে কোন মেয়েলি ঘটনাও জড়িয়ে থাকতে পারে। এ ব্যাপারে থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।


মন্তব্য