kalerkantho


বাগেরহাটে পরিবহন ধর্মঘটে যাত্রীভোগান্তি চরমে

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:১০



বাগেরহাটে পরিবহন ধর্মঘটে যাত্রীভোগান্তি চরমে

সড়ক দুর্ঘটনায় তারেক-মিশুকের মৃত্যুর দায়ে বাসচালকের সাজার প্রতিবাদে দক্ষিণাঞ্চলীয় জেলা বাগেরহাটে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট চলছে। ধর্মঘটের কারণে রবিবার সকাল ৬টা থেকে জেলার ওপর দিয়ে সবক'টি রুটে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। বাগেরহাটসহ খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় অনির্দিষ্টকালের এই পরিবহন ধর্মঘটের কারণে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের সঙ্গে এসব জেলাগুলোর সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। ধর্মঘটের কারণে এসব রুটে চলাচলকারী যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

সড়ক দুর্ঘটনায় চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ এবং সাংবাদিক মিশুক মুনীর নিহত হওয়ার জন্য দায়ী বাসচালকের যাবজ্জীবন সাজার রায়ের প্রতিবাদে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে রবিবার সকাল ৬টা থেকে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় পরিবহন ধর্মঘট চলছে।

আন্দোলনকারী শ্রমিকরা বলছেন, অন্যায়ভাবে বাসচালক জামির হোসেনকে সাজা দেওয়া হয়েছে। তাদের সহকর্মীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় মাথায় নিয়ে তারা গাড়ি চালাবে না। যতদিন পর্যন্ত ওই বাসচালকের মুক্তি না হবে ততদিন পর্যন্ত পরিবহন ধর্মঘট চলতে থাকবে। বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী যাত্রীরা বলছেন, এই ধর্মঘটের কারণে তারা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বাস চলাচল বন্ধ থাকায় তারা তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছে না। এই ধর্মঘটের দ্রুত অবসান চান যাত্রীরা।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ১৩ আগস্ট মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার জোকা এলাকায় চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে সংঘর্ষে মাইক্রোবাস আরোহী তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহত হন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায়ে আদালত গত বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বাসচালক জামির হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন। ওই দিন থেকেই চুয়াডাঙ্গা জেলায় পরিবহন শ্রমিকরা ধর্মঘট পালন করছে। এর পর রবিবার থেকে শুরু হলো খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় পরিবহন ধর্মঘট।


মন্তব্য