kalerkantho


আবাসন প্রকল্পে আগুন

বাগেরহাটে ভূমিহীনদের ১০টি বসতঘর পুড়ে ছাই

জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি গঠন

বাগেরহাট প্রতিনিধি    

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:৩৫



বাগেরহাটে ভূমিহীনদের ১০টি বসতঘর পুড়ে ছাই

বাগেরহাটের রামপালে ভূমিহীন ও হতদরিদ্রদের একটি আবাসন প্রকল্পে অগ্নিকাণ্ডে  ১০টি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় রামপাল উপজেলার পেড়িখালী ইউনিয়নের সিকিরডাঙ্গা আবাসন প্রকল্পে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

বাগেরহাট, মোংলা ও ইপিজেড ফায়ার ব্রিগেড কর্মী এবং স্থানীয়রা প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে আগুনে ওই প্রকল্পের বাসিন্দা ১০টি ভূমিহীন ও হতদরিদ্র পরিবারের বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিসকর্মীদের ধারণা। অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানতে বাগেরহাট জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মোংলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লিডার (হাবিলদার) মো. নজরুল ইসলাম হাজরা জানান, আবাসন প্রকল্পে জ্বলতে থাকা আগুন তিনটি স্টেশনের ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে রাত ৮টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ততক্ষণে আগুনে ওই প্রকল্পের ১০টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনে পুড়ে ১০টি পরিবারের পাঁচ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে তিনি জানান।

রামপাল উপজেরা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তুষার কুমার পাল জানান, আগুনের খবর পেয়ে ওই রাতেই তিনি ওই আবাসন প্রকল্প পরিদর্শন করেছেন।

আগুনে প্রকল্পের বাসিন্দা ১০টি পরিবারের বসতঘরে থাকা সম্পূর্ণ মালামাল পুড়ে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুটি করে কম্বল ও খাবার সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ইউএনও তুষার কুমার পাল আরো জানান, ভূমিহীন ও হতদরিদ্রদের আবাসনের জন্য প্রায় ১৫ বছর আগে সিকিরডাঙ্গা গ্রামে আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলা হয়। ওই প্রকল্পে ১২০টি হতদরিদ্র পরিবারের বসবাস। এর মধ্যে আগুনে ১০টি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস জানান, ওই আবাসন প্রকল্পে আগুনের কারণ জানতে আজ শনিবার পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. মোমিনুর রশিদকে প্রধান করে ওই কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করা হবে বলে জেলা প্রশাসক জানান।

 


মন্তব্য