kalerkantho


পুলিশসহ আহত ১০, ২৫ বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ

শেরপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় যুবক নিহত

জমি সংক্রান্ত বিরোধ

শেরপুর প্রতিনিধি    

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:১৬



শেরপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় যুবক নিহত

শেরপুর সদর উপজেলার রৌহা ইউনিয়নের হালগড়া গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আব্দুস সাত্তার (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছে। এতে আহত হয়েছে এক পুলিশ সদস্যসহ ১০ জন। এ ঘটনার জের ধরে অগ্নিকাণ্ডে ২৫টি  ঘর ভস্মীভুত হয়েছে। আজ শুক্রবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার হালগড়া গ্রামের মজু মিয়া ও তার ভাই কাদেরের সঙ্গে একই এলাকার রফিক মিয়ার একখণ্ড জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। স্থানীয় রহিজ উদ্দিন নামের এক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য রফিকের পক্ষ নিলে এ নিয়ে বিরোধ চরমে ওঠে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিরোধপূর্ণ ওই জমি নিয়ে রফিক ও রহিজউদ্দিন এবং প্রতিপক্ষ মজু-কাদেরের লোকজন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হন। গুরুতর আহত কাদেরের ভাই আব্দুস সাত্তারকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ শুক্রবার বিকেলে মারা যান তিনি।

এদিকে, আব্দুস সাত্তারের মৃত্যুর খবর গ্রামে পৌঁছালে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। শেরপুর থেকে পুলিশ হালগড়া গ্রামে অবস্থান নেয়।

এ সময় রহিজ ও রফিকের ঘরবাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ২০-২৫টি বাড়িঘর ভস্মীভুত হয়। এ ঘটনায় পুরো হালগড়া গ্রামজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি হয় এবং উভয় পক্ষ দেশীয় ধারালো  অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে গ্রামের দু‌ই দিকে অবস্থান নেয়। অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভুত পরিবারগুলোর দাবি, পুলিশের উপস্থিতিতে মজু-কাদেরের লোকজন ঘরবাড়িতে আগুন দিয়ে সবকিছু ঘর ভস্মীভুত করেছে।

শেরপুর সদর থানার ওসি মো. নজরুল ইসলাম এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, "প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে রহিজউদ্দিনের লোকজন নিজেদের বাড়িঘর ভাঙচুর করে তাতে অগ্নিসংযোগ করলে সেই আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ২০-২৫টি বাড়িঘর ভস্মীভুত হয়। আগুন দেওয়ার সময় এক নারীকে পুলিশ ধরে ফেললে পুলিশের ওপর হামলা করে তাকে ছাড়িয়ে নেয় রহিজউদ্দিনের লোকজন। এ ঘটনায় সাইফুল ইসলাম নামের এক পুলিশ কনস্টেবল আহত হন। তিনি জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে   এলাকায় কাজ করছি। লোকজন এখনও আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই আব্দুল কাদের বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

 


মন্তব্য