kalerkantho


ইবিতে র‌্যাগিংয়ের নামে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:৩৫



ইবিতে র‌্যাগিংয়ের নামে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদেরকে র‌্যাগিংয়ের নামে নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা সতর্ক বার্তায় পার পেয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। আজ বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অভিযুক্তদের এ সতর্ক বার্তা দেয় হয়।

এদিকে র‌্যাগের নামে নবীন শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনকারী শিক্ষার্থীরা এভাবে পার পেয়ে যাওয়াটা রহস্যজনক বলে মনে করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তদন্ত কমিটি দায়সারা তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে বলেও অভিযোগ করেছে শিক্ষকরা।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিংযের নামে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে বিভিন্ন বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থী। ভূক্তভোগীরা প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান ও ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল হক এর কাছে লিখিত অভিযোগ করে। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাগিংয়ের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে প্রক্টরকে আহবায়ক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করে প্রশাসন। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে ৫ শিক্ষার্থীকে সতর্ক করে প্রশাসন।  

আজ বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ফলিত পদার্থবিজ্ঞান অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের রিসালাত হেসেন, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের জাকির হোসেন, হাফিজুর রহমান, শাহারিয়ার ইসলাম শোভন এবং মার্কেটিং বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের হেদায়েতুল হাসান সোহেলকে সতর্ক বার্তা প্রেরণ করা হয়। এদিকে র‌্যাগিংয়ের নামে শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন কারীরা এভাবে সতর্ক বার্তার মাধ্যমে পার পেয়ে গেলে ক্যাম্পাসে র‌্যাগিং বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করেন শিক্ষকরা।  

এ বিষয়ে ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, এত বড় অপরাদ করে সতর্ক বার্তার মাধ্যমে পার পেয়ে যাওয়াটা তামাশা।

এতে ক্যাস্পাসে র‌্যাগিং আরো বৃদ্ধি পেতে পারে। তদন্ত কমিটি হয়তো দায়সারা প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ বলেন, কয়েকদিন আগে র‌্যাগিং সংক্রন্ত তদন্ত কমিটি তাদের প্রতিবেদ জমা দিয়েছে। তদন্ত রিপোটের উপর ভিত্তি করেই অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের সতর্ক বার্তা পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য