kalerkantho


এমপি লিটন হত্যার পরিকল্পনাকারীসহ হত্যাকারীরা গ্রেপ্তার : ডিআইজি ফারুক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৩



এমপি লিটন হত্যার পরিকল্পনাকারীসহ হত্যাকারীরা গ্রেপ্তার : ডিআইজি ফারুক

ফাইল ফটো

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি মো. মনজরুল ইসলাম লিটনকে হত্যার পরিকল্পনাকারীসহ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হত্যাকারীরা হলো- শাহিন মিয়া, হান্নান মিয়া ও মেহেদী হাসান এবং মূল পরিকল্পনাকারী জাতীয় পার্টির (জাপা) সাবেক এমপি কর্নেল (অব.) ডা. আবদুল কাদের খান।

আজ বুধবার জেলা পুলিশ সুপার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরেন রংপুর রেঞ্জের ডিইজি খন্দকার গোলাম ফারুক। তিনি বলেন, দ্রুত হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের মাধ্যমে পুলিশ একটি ভালো কাজ সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছে।

ডিইজি আরো বলেন, গত ২ ডিসেম্বর বামনডাঙ্গার একটি ছিনতাইয়ের ঘটনায় ব্যবহার করা গুলি ও ম্যাগজিনের সূত্র ধরেই কাদের খানকে চিহ্নিত করা হয়। লিটন হত্যাকাণ্ডে যে অস্ত্র ও গুলি ব্যবহার করা হয় তার সাথে মিল পাওয়া যায় ছিনতাইয়ে ব্যবহার করা অস্ত্র থেকেই।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, কর্নেল কাদের খানের গাড়িচালক আবদুল হান্নান হত্যাকাণ্ডে কিলারদের পালিয়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন সহযোগিতা করেন। হত্যাকাণ্ডে তার ভাতিজা শাহীন মিয়া ও কেয়ারটেকার মেহেদীসহ চারজন অংশ নেয়। এর মধ্যে রানা নামে একজন পলাতক রয়েছে। তাকেও গ্রেপ্তারে তৎপর রয়েছে পুলিশ। এদের মধ্যে হান্নান, মেহেদী ও শাহীনকে গ্রেপ্তার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়ার জন্য আদালতে হাজির করা হয়।

পরে তারা আদালতের লিটন হত্যাকাণ্ডের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়, তারা কর্নেল (অব:) কাদের খানের নির্দেশে হত্যাকাণ্ড ঘটায়।

গ্রেপ্তারকৃত হান্নান জাপা নেতা কাদের খানের গাড়ি চালক। শাহিন তার ভাইয়ের ছেলে। মেহেদী হাসান তার কেয়ারেটেকার।  তারা কাদের খানের কাছ থেকে ৬ মাস ধরে অস্ত্র চালনার প্রশিক্ষণ গ্রহন করে। এক বছর আগে কাদের খান লিটন হত্যার পরিকল্পনা করে।

ডিআইজি ফারুক বলেন, কর্নেল কাদের খান শুধু এমপি লিটনকে হত্যা নয়, উপনির্বাচনে অংশ নেওয়া জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারীকেও হত্যার পরিকল্পনা করে আসছিলেন। হত্যাকারীদের জবানবন্দির সূত্র ধরে পুলিশ কাদের খানকে বগুড়ার রহমান নগর তার বাসা থেকে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে গ্রেপ্তার করে। পরে রাতে তাকে গাইবান্ধা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, বুধবার দুপুরের মধ্যে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে কাদের খানকে হাজির করা হবে।


মন্তব্য