kalerkantho


মাদক নিরাময় কেন্দ্র থেকে যুবলীগ নেতার লাশ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:১৭



মাদক নিরাময় কেন্দ্র থেকে যুবলীগ নেতার লাশ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সোহেল রানার (২৬) লাশ আজ সোমবার রাত ৮টার দিকে মাদক নিরাময় কেন্দ্র থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ময়না তদন্তের জন্য লাশ জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

সোহেল রানা সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের ছাতিয়াইন গ্রামের এলেম মিয়ার ছেলে।

তবে তার মত্যু সম্পর্কে নিশ্চিত করে কিছু জানা যায় নি। তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছে। অন্যদিকে নিরাময় কেন্দ্র সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তবে কি কারণে আত্মহত্যা করেছে সে বিষয়ে তারা নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছে না। ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।   

বুধল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও সোহেলের চাচাতো ভাই ফরিদ মিয়া জানান, গত রবিবার দুপুর থেকে সোহেল রানা সদর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের ঘাটুরা এলাকার 'প্রত্যাশা' নামে একটি মাদক নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি ছিলেন। আজ সোমবার সন্ধ্যার পর তারা জানতে পারেন সোহেল রানা মারা গেছেন। তবে তাদের ধারণা সোহেল রানাকে হত্যা করা হয়েছে।

 

এ বিষয়ে সোহেল রানার বড় ভাই মো. সেলিম মিয়ার মোবাইল ফোনে কল করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি। ফোন রিসিভ করা আব্দুর রউফ নামে এক ব্যক্তি বলেন, পরিবারের লোকজন এখন মনে করছেন তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।      

লাশ উদ্ধার করা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার এস.আই মো. মেহেদি হাসান জানান, মাদক নিরাময় কেন্দ্রের বিছানায় শোয়া অবস্থায় তারা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখন ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে বোঝা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।

এ ব্যাপারে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের অন্যতম পরিচালনকারি মো. জামাল হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, সোহেল মাদকাসক্ত ছিল এবং পরিবারের লোকজন আমাদের এখানে নিয়ে আসতো বলেই সে আত্মহত্যা করেছে।


মন্তব্য