kalerkantho


ধর্ষণের শিকার হলো প্রতিবন্ধি কিশোরী

কুমিল্লা প্রতিনিধি   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৮:২৭



ধর্ষণের শিকার হলো প্রতিবন্ধি কিশোরী

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের গকুলনগর গ্রামে প্রতিবন্ধি কিশোরী (১৫) ধর্ষণের শিকার হয়ে  অন্তসত্বা হয়ে পড়েছে। গর্ভের শিশুটির পিতৃ পরিচয় নিয়ে চলছে নানান তাল বাহানা।

প্রভাবশালি মহলের চাপে অসহায় হয়ে পড়েছে ধর্ষিতার পরিবার। বিষয়টি নিয়ে গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে ডিএনএ পরীক্ষার নামে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্র।

শারীরিক প্রতিবন্ধি কিশোরীটি জানায়, প্রায় আট মাস পূর্বে গত রমজানে কোন একদিন সন্ধ্যারাতে সে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাহিরে বের হলে তার চাচাতো ভাই মো: নুরু মিয়ার ছেলে কাদির তাকে তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি দোকান ঘরে রেখে হাত পা বেধে ও মুখে কাপড় দিয়ে জোরপূর্বক ভাবে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনাটি প্রকাশ করলে তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। ঘটনার বেশকিছু দিন পর হঠাৎ করে তার শারীরিক পরির্বতন দেখা দিলে তার মা তাকে হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা করায়, সেখানে জানা যায় তার পেটে বাচ্চা।  

প্রতিবন্ধি মেয়েটি আরও জানায়, পেটের বাচ্চা ও তার সাথে হওয়া অপরাধের বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে সে কাদিরের নাম প্রকাশ করে। এরপর থেকে কাদির ও তার পরিবার বিষয়টিকে অস্বীকার করে আসছে। স্থানীয় প্রভাবশালী একটি চক্র বিষয়টি আপোষ-মিমাংসার জন্য দফায় দফায় বৈঠকে বসছেন। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি রাতে একটি বৈঠকে প্রতিবন্ধি মেয়েটিকে ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে গর্ভের শিশুটির পিতৃ পরিচয় নিশ্চিত করতে সিদ্ধান্ত নেয় বিচারকগণ।

এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, ধর্ষিতার পিতাহারা হতদরিদ্র পরিবারটিতে তার মা কাজ করে সংসার চালায়। কখনো অনাহারে আবার কখনো অর্ধাহারে চলে তাদের জীবনযাপন। এলাকাবাসীর দাবি এই ঘটনাটির সুষ্ঠু বিচার ও অনাগত সন্তানটির ভবিষ্যত চিন্তা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে স্থানীয় প্রশাসন।

ধষর্ণে অভিযুক্ত কাদিরের মা হোসেনা বেগম জানান, 'আমার ছেলে ঢাকায় কাজ করে। গত রমজানে ঢাকা থেকে সে ছুটিতে বাড়ীতে এসেছিল। কিন্তু এ ব্যাপারে আমি আর কিছু জানিনা। ' এ বিষয়ে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা পারভিন আক্তার জানান, 'এ বিষয়টি আমি অবগত নই। বিষয়টি খোঁজ  নিচ্ছি। সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। '

মুরাদনগর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান বলেন, 'আমার কাছে কেউ অভিযোগ করেনি, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। '


মন্তব্য