kalerkantho

মঙ্গলবার। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ৯ ফাল্গুন ১৪২৩। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সুন্দরগঞ্জের সাবেক এমপির বাসা ঘিরে পুলিশের অবস্থান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৫



সুন্দরগঞ্জের সাবেক এমপির বাসা ঘিরে পুলিশের অবস্থান

গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের আসন গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে উপনির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময়ের শেষ পর্যায়ে সেখানে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক জাতীয় পার্টির এক নেতার বাসা ঘিরে অবস্থান নিয়েছে পুলিশ। তিনি হলেন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে ২০০৮ সালের ভোটে নির্বাচিত এমপি আব্দুল কাদের। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর বগুড়ার বাসভবনে অবস্থান নেয় পুলিশ।

সুন্দরগঞ্জের ছাপোড়হাটি গ্রামের আব্দুল কাদের পেশায় চিকিৎসক এবং সাবেক এমপি। তার স্ত্রী নাছিমা বেগমও একই পেশার। বগুড়ায় এই দম্পতির বাসায় গড়ে তোলা হয়েছে ‘গরীব শাহ ক্লিনিক’। কিন্তু হঠাৎ করে গতকাল রাত সাড়ে ৯টার পর থেকে পুলিশ ওই ক্লিনিক কাম বাসার সামনে অবস্থান নেয় এবং সেখানে প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করে।

এদিকে বাসা ঘিরে পুলিশের অবস্থানে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন কাদেরের স্ত্রী নাছিমা বেগম। আজ শুক্রবার তিনি বলেন, “আমার ক্লিনিক কাম বাসায় এতদিন নিরাপত্তার অভাব হলো না। এই মুহূর্তে পুলিশের নিরাপত্তার বিষয়টা মাথায় খেলে না। এটা নিয়ে ভাবছি। ”

নাছিমা বেগম জানান, পুলিশের অবস্থানের কারণে বৃহস্পতিবার রাত থেকে তার স্বামী ক্লিনিক থেকে বের হননি। তাদের আটক কিংবা গ্রেপ্তারের জন্য নয়, ‘ভালোর জন্যই’ পুলিশ অবস্থান করছে বলে জানানো হয়। বলছে, নিরাপত্তার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তারা অবস্থান করছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বগুড়ার পুলিশ সুপার আসাদুজ্জমান সাংবাদিকদের বলেন, “বিষয়টি জানি না। কী কারণে ওই বাসার সামনে পুলিশ অবস্থান করছে তা বলতে পারবে গাইবান্ধা পুলিশ। ”

গাইবান্ধার পুলিশ সুপারকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি। পরে গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল ফারুকের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, “ব্যক্তিগত নিরাপত্তার জন্য তার (ডা. কাদের) বাড়িতে পুলিশ ফোর্স দেওয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এ বিষয়ে এসপি স্যার ভালো বলতে পারবেন। ” 

গাইবান্ধার পুলিশ সুপারকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি।

উল্লেখ্য, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে ভোট হবে আগামী ২২ মার্চ। প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে হবে ১৯ ফেব্রুয়ারির মধ‌্যে।


মন্তব্য