kalerkantho


রাঙামাটির বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচন

'নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করতে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করা হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:৩৬



'নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করতে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করা হবে'

নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনে আগামীকাল শনিবার প্রথম নির্বাচন রাঙামাটির বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচন। আর এ নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে আজ শুক্রবার বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে মতবিনিময় সভা করেছেন নবগঠিত নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদৎ হোসেন চৌধুরী।  

সভায় বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচনকে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে শাহাদৎ হোসেন চৌধুরী বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে সব নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে করতে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করা হবে।  

তিনি আরো বলেন, নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনে আগামী সব নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। এর জন্য যা যা করণীয়, কমিশন তা করবে।

মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মানজারুল মান্নান, পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসাইন, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. নাজিম উদ্দিন, বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বড়ঋষি চাকমাসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, বাঘাইছড়ি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী হিসেবে জাফর আলী খান, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ওমর আলী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজুর রহমান আজিজ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২৫ জন এবং সংরক্ষিত আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ছয়জন।

সূত্র আরো জানায়, এ পৌরসভায় মোট ভোটার রয়েছেন ১০ হাজার ১৭৭ জন। এর মধ্যে পাহাড়ি ভোটার রয়েছেন এক হাজার ৬৩২ জন। মোট ৯টি কেন্দ্রে এ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এরই মধ্যে নির্বাচনী সরঞ্জাম কেন্দ্রে পৌঁছেছে।

উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছে, নির্বাচনকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। মাঠে রয়েছে বিজিবি ও অতিরিক্ত পুলিশ।  
 


মন্তব্য