kalerkantho


সোনামসজিদ স্থলবন্দরে কাস্টমস কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৪৭



সোনামসজিদ স্থলবন্দরে কাস্টমস কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

দেশের ২য় বৃহত্তম স্থলবন্দর চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার সোনামসজিদ স্থলবন্দরের কাস্টমস কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ তুলে ব্যবসা-বাণিজ্যের সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবিতে ৭ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপ, সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশন ও স্থলবন্দর শ্রমিক লীগ। সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরে না আসলে ৭ দিন পর আন্দোলনে নামার ঘোষণা দিয়েছে সোনামসজিদ স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপ, সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশন ও স্থলবন্দর শ্রমিক লীগ।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলনে সোনামসজিদ স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সাবেক সভাপতি কবিরুল রহমান খাঁন (খোকন) জানান, 'কাস্টমস কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত স্বেচ্ছাচারিতার কারণে আমদানিকৃত পণ্য ছাড়ে বিলম্ব, কাগজপত্র পরীক্ষার অযুহাতে হয়রানি, আমদানিকৃত ফলের ৩/৪ বার ওজন করা, গোডাউনের বিভিন্ন পণ্য ছাড়ে দিনের পর দিন সময় ক্ষেপণ করাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে চরম হয়রানি করায় বন্দরে সিএন্ডএফ এজেন্টগণ, আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপ ও শ্রমিক শ্রেণি অর্থনীতি সংকটে পড়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। '

তিনি আরও বলেন- 'আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বন্দরের সকল ক্ষেত্রে সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনা না হলে কঠোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবো। এছাড়া ফল আমদানির ক্ষেত্রে নিয়ম অনুযায়ী ক্যারেটের ওজন বাদ দিয়ে রাজস্ব আদায়ের নিয়ম থাকলেও এ বন্দরে সে নিয়ম মানা হচ্ছে না। ' 

সংবাদ সম্মেলনে আরও অভিযোগ করে বলেন, 'কাস্টমস কর্তৃপক্ষের অসহযোগিতার কারণেই সোনামসজিদ স্থলবন্দরে দিন দিন পণ্য আমদানি কমে যাচ্ছে। সেই সাথে কমে গেছে রাজস্ব আহরণের পরিমাণও। ' কাস্টমস কর্মকর্তাদের অসহযোগিতায় ভারতীয় ব্যবসায়ীরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বলে দাবি করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।  

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, শ্রমিক সমন্বয় কমিটির সভাপতি সাদেকুল রহমান মাষ্টার, বন্দর শ্রমিক নেতা মুখলেসুর রহমান সরদার, এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।


মন্তব্য