kalerkantho


সুনামগঞ্জে তিন দিনের ইজতেমা শুরু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৯:৪১



সুনামগঞ্জে তিন দিনের ইজতেমা শুরু

আজ বৃহস্পতিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) থেকে সুনামগঞ্জে শুরু হয়েছে জেলা ইজতেমা। আজ ফজরের নামাজের পর বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে ইজতেমার তিন দিনব্যাপী আনুষ্ঠানিকতা। মুসল্লিম উম্মাহর শান্তি কামনায় আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শনিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) শেষ হবে এই আয়োজন।

ফজরের নামাজ আদায়ের পর কাকরাইল মসজিদের প্রবীণ মুরব্বির বয়ান দিয়ে শুরু হয়েছে ইজতেমার প্রথম দিন। ইজতেমায় ধারাবাহিকভাবে তিন দিন ধরে কোরআন-হাদিস, আমল ও আখলাকের ওপর বয়ান পেশ করবেন ইজতেমার আমন্ত্রিত আলেমরা।

ইজতেমার আয়োজক সূত্রে জানা গেছে, এরই মধ্যে বিদেশি জামায়াতের ২৭ জন মেহমান ইজতেমায় অবস্থান করছেন। জামায়াতগুলো থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, পাকিস্তান, যুক্তরাজ্য, ভারত, আরব আমিরাত, মিসর, ইসরায়েল, মরক্কো, কুয়েত ও ফ্রান্স থেকে আগত। আয়োজকরা জানান, ইজতেমা মাঠকে উপজেলা অনুসারে সাজানো হয়েছে।

জেলা ইজতেমার সমন্বয়ক মাওলানা আনোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ইজতেমার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ। আশা করছি, ইজতেমায় ৮ লাখ মুসল্লির সমাবেশ ঘটবে। আখেরি মোনাজাতের দিন উপস্থিতি আরও বেশি হবে।

’ ইজতেমা সফল করতে তিনি সবার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ইজতেমায় অংশ নিতে আসা মুসুল্লীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ইজতেমা ময়দানের পাঁচ শতাধিক পুলিশ নিয়োজিত থাকবে। এ ছাড়া ময়দানে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে র্যাবের বিশেষ টহলদল।

থাকবে ওয়াচ টাওয়ার, সাদা পোষেকের গোয়েন্দা পুলিশ, সন্দেহভাজনদের পরীক্ষা করার জন্য মেটাল ডিটেক্টর। অধিকতর নিরাপত্তার জন্য ১৭ লাখ বর্গফুট আয়তনের পুরো ইজতেমা ময়দান থাকবে সিসি ক্যামেরার আওতাধীন।

সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, 'পুরো ইজতেমা ময়দানকে কঠোর নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। কেউ নাশকতার চেষ্টা করলে কঠোরভাবে দমন করবে পুলিশ। '

ইজতেমা ময়দান এলাকায় যোগাযোগের সুবিধা ও যানজট এড়াতে ইজতেমার তিন দিন আব্দুজ জহুর সেতু থেকে বইটাখালি তেমুখ পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ থাকবে। রাস্তাটির মুখে বসানো হয়েছে চেক পোস্ট।


মন্তব্য