kalerkantho


সুগার মিলের আখ মাড়াইকল জব্দকারী দলকে কৃষকদের ধাওয়া

জামালপুর প্রতিনিধি   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২২



সুগার মিলের আখ মাড়াইকল জব্দকারী দলকে কৃষকদের ধাওয়া

ইসলামপুরের গোয়ালেরচর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামে মঙ্গলবার বিকালে দেওয়ানগঞ্জ জিলবাংলা সুগারমিলের ৪ কর্মকর্তা, ইসলামপুরের ইউএনও এবং ওসিসহ আখ মাড়াই কল জব্দকারী দলের ২৫ কর্মকর্তা কর্মচারীর উপর সন্ত্রাসী হামলা চালানোর চাঞ্চল্যকর খবর পাওয়া গেছে। ওই সন্ত্রাসী হামলায় চালিয়ে আখ মাড়াইকল জব্দকারী দলের ২৫ সদস্যকে এলাকা থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় আখ চাষী ও গুড় ব্যবসায়ীরা।


স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইসলামপুরের গোয়ালেরচর এলাকায় মঙ্গলবার আখ মাড়াইকল জব্দ করতে গিয়েছিলেন দেওয়ানগঞ্জ জিলবাংলা চিনিকলের মহাব্যবস্থাপক প্রশাসন জাহাঙ্গীর আহম্মেদ চৌধুরী, কৃষি মহাব্যবস্থাপক (ভারপ্রাপ্ত) আশরাফ হোসেন, জিএম প্রশাসন রেজুয়ানা জেবুন, নিরাপত্তা কর্মকর্তা আব্দুল হাই, ইসলামপুরের ইউএনও এবিএম এহছানুল মামুন, ইসলামপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি রুবেল মাহমুদ, ইসলামপুর থানার ওসি দীন-ই আলমসহ ২৫ সদস্যের একটি দল। তারা মঙ্গলবার বিকালে গোয়ালেরচর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামে আখ মাড়াইকল জব্দ করতে শুরু করলে স্থানীয় আখ চাষী ও গুড় ব্যবসায়ীরা বাঁধা দেয়। এতে প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। পরে স্থানীয় আখ চাষী ও গুড় ব্যবসায়ীদের পরিবারের দুই শতাদিক সদস্য লাঠি ফালাসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আখ মাড়াইকল জব্দকারী দলের ২৫ সদস্যকে ধাওয়া করে। এ সময় জব্দকারী দলের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ ২৫ জনের দলটির সকলেই সন্ত্রাসী হামলার ভয়ে গোয়ালেরচর এলাকা থেকে পালিয়ে এসেছেন।

দেওয়ানগঞ্জ জিলবাংলা সুগারমিলের কৃষি মহাব্যবস্থাপক আশরাফ আলী জানান, দেওয়ানগঞ্জ জিলবাংলা চিনিকল জোন এলাকায় অবৈধভাবে ক্রাশার মেশিনে আখ মাড়াই করে গুড় উৎপাদন করায় সুগারমিলে আখের সংকট দেখা দিয়েছে। সুগার মিলে আখের সংকট নিরসনে এবছর মৌসুমের শুরু থেকেই সুগারমিল জোন এলাকায় অবৈধ আখ মাড়াই কল জব্দ করার জন্য নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইসলামপুরের গোয়ালেরচর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামে দীর্ঘদিন যাবত ২০টি আখ মাড়াই কল বসিয়ে স্থানীয় গুড় ব্যবসায়ীরা আখ মাড়াই করে গুড় উৎপাদন করছেন। ওই ২০টি অবৈধ আখ মাড়াইকল জব্দ করতে গেলে স্থানীয় সন্ত্রাসী ও গুড় ব্যবসায়ীরা লাঠি ফালাসহ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আখ মাড়াইকল জব্দকারী দলের ২৫ সদস্যকে ধাওয়া করে।

এ সময় নিরুপায় হয়ে তারা ওই এলাকা থেকে চলে এসেছেন।

দেওয়ানগঞ্জ জিলবাংলা সুগারমিলের মহা ব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আহম্মেদ চৌধুরী জানান, ইসলামপুরের গোয়ালেরচর এলাকার আখ চাষীরা সুগার মিলের নিকট থেকে ২০ লক্ষাধিক টাকা ঋণ নিয়ে আখ চাষ করেছেন। অথচ সুগার মিলে আখ বিক্রয় না করে অবৈধভাবে ক্রাশার মেশিনে আখ মাড়াই করে গুড় উৎপাদন করছে। তাই সুগার মিলের আখ সংকট নিরসনের পাশাপাশি বকেয়া ঋণ আদায়ের জন্য মঙ্গলবার বিকালে অবৈধ আখ মাড়াই কল জব্দ করার অভিযান চালানো হয়। সেখানে কিছু গুড় ব্যবসায়ী ও অবৈধ আখ মাড়াই কলের মালিক শ্রমিকরা জব্দকারী দলের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালায়। ওই সন্ত্রাসীরা জব্দকারী দলের শ্রমিকদের নিকট থেকে সুগারমিলের কিছু যন্ত্রপাতি ছিনিয়ে নিয়েছে। এজন্য সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ইসরামপুর থানায় মামলা করা হয়েছে।

ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবিএম এহছানুল মামুন জানান, সুগারমিল কর্মকর্তাদের অনুরোধে মঙ্গলবার ইসলামপুরের গোয়ালেরচর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামে যাই। সেখানের অবৈধ আখ মাড়াইকল জব্দ করতে গেলে এলাকার আখ চাষীরা আপত্তি জানায়। চাষীদের অভিযোগ, সুগারমিলে আখ বিক্রয় করলে তাদের লোকসান হয় এবং গুড় উৎপাদন করলে অধিক লাভ হয়। তাই এলাকার সকল চাষীদের স্বার্থ বিবেচনায় মাড়াইকল জব্দের অভিযান স্থগিত করে চলে এসেছি। এসময় অতি উৎসাহী কিছু আখ চাষী ও গুড় ব্যবসায়ীরা হৈহুল্লোর করেছে।

ইসলামপুর থানার ওসি দীন ই-আলম জানান, সুগার মিলের আখ মাড়াইকল জব্দকারী দলের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে সুগারমিলের যন্ত্রপাতি ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে থানায় একটি মামলা হয়েছে। দেওয়ানগঞ্জ জিলবাংলা সুগারমিলের মহাব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আহম্মেদ চৌধুরী বাদী হয়েছেন। ওই মামলায় ২০ জনকে নামীয় এবং অজ্ঞাত আরও একশ’জনকে আসামি করা হয়েছে।


মন্তব্য