kalerkantho


বুড়িগঙ্গাসহ সকল নদী দূষণমুক্ত করা হবে : পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২২:৪৬



বুড়িগঙ্গাসহ সকল নদী দূষণমুক্ত করা হবে : পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী

পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব বলেছেন, "আমরা একটি দূষণ মুক্ত পরিবেশ বান্ধব দেশ চাই। বুড়িগঙ্গা নদী দূষণ রোধ করতে ইটিপি ছাড়া কোন ডাইং ফেক্টরী থাকতে দেওয়া হবে না। পর্যায়ক্রমে বুড়িগঙ্গাসহ সকল নদী দূষণমুক্ত করা হবে। " গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে কেরানীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে এসে তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, "কেরানীগঞ্জে যেসব ওয়াশিং ও ডাইং কারখানা রয়েছে তার বেশীরভাগ কারখানায় ইটিপি নেই। এখানের ইটভাটা গুলোও ২০১৩ সালের ইট প্রস্তুত ও ভাটা নিয়ন্ত্রণ আইন মানছে না। ফলে ৪ টি ইটভাটাকে বন্ধ করে দিয়ে সেগুলো ভেঙে দেয়া হয়েছে। " এছাড়া বেশ কয়েকটি ওয়াশিং ও ডাইং ফেক্টরি সিলগালা করে দিয়ে ঐসব কারখানার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান জানান, বুধবার সকাল থেকে পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব নিজেই পরিবেশ রক্ষার্থে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন তেঘরিয়া, কদমতলী ও আগানগর এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় তিনি এন বি এম ব্রিকস, রাফিয়া আলিমুদ্দিন ব্রিকস, ডায়মন্ড ব্রিকস ও জেপিএন ব্রিকস নামে ৪ টি ইটভাটা বন্ধ করে দিয়ে সেগুলো ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

পরে তিনি রাজু কুটির নামে একটি জিআই তার কারখানা, মায়ের দোয়া ডাইং, আহম্মেদ ওয়াশিং, বিসমিল্লাহ ওয়াশিং, সায়মা ওয়াশিং গ্লোবাল ওয়াশিং ও নূর ডাইংসহ বেশ কয়েকটি কারখানা সিলগালা করে দিয়ে সাথে সাথে ঐসব কারখানার বিদ্যুৎ সংযোগও বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার নির্দেশ দেন। পরে মন্ত্রী শুভাঢ্যা খাল পরিদর্শন করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক ও যুগ্ম সচিব মোঃ আলমগীর, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ সার্কেল শিউলি রহমান তিন্নী, উপজেলা বন কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মিহির লাল সরকার প্রমুখ।  


মন্তব্য