kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


গোপালগঞ্জে অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে ৫ জনকে জরিমানা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ১৯:০৯



গোপালগঞ্জে অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে ৫ জনকে জরিমানা

গোপালগঞ্জে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের অপরাধে ৫ ড্রেজার শ্রমিককে কারাদন্ড ও আর্থিক জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত বুধবার সন্ধ্যায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মধুমতি নদীর মাদারিপুর বিলরুট ক্যানাল থেকে বালু উত্তোলনের সময় এই শ্রমিকদের আটক করা হয়।

গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এ অভিযান চালানো হয়।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার টেংরারচর গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে মোঃ গিয়াস উদ্দিন, পিরোজপুর জেলার স্বরুপকাঠি উপজেলার সারেংকাঠি গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মোঃ জাহিদ,  ভোলা জেলার দৌলতখাঁন উপজেলার দিদারুল্লাহ গ্রামের আব্দুল কাদের মিয়ার ছেলে মোঃ মিজানুর রহমান,  বরগুনা সদর উপজেলার কুমিরমারা গ্রামের নাজিম পহোলানের ছেলে মোঃ আবু হোসেন ও চট্রগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি উপজেলার লালমাই গ্রামের মোঃ মাজু মিয়ার ছেলে মোঃ মমিন। এদের সবাই ড্রেজার শ্রমিক।

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তামোঃ জালাল উদ্দিন জানিয়েছেন, সরকারি কোন অনুমোদন না নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছিল এই চক্রটি। গত বুধবার সন্ধ্যায় মধুমতি নদীর সদর উপজেলার করপাড়া নামক স্থান থেকে এসব শ্রমিক ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করছিল। এসময় উলপুর তহশীল অফিসের ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা সিকদার নজরুল ইসলাম এসব ড্রেজার শ্রমিকদের আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করেন। পরে স্থানীয়দের স্বাক্ষ্য-প্রমানের ভিত্তিতে প্রত্যেককে বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ ভঙ্গের অপরাধে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

রাত ৯ টার দিকে ড্রেজার মালিক সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলীয়া গ্রামের মুন ভূইয়া, তারিকুল ভূইয়া ও হরিদাসপুর গ্রামের হিটলার মিয়া ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির হয়ে প্রত্যেক শ্রমিকের জন্য ৫০ হাজার টাকা করে মোট আড়াই লাখ টাকা জমা দিয়ে কারদন্ড প্রাপ্ত শ্রমিকদের ছাড়িয়ে নেন।

উল্লেখ্য, বালু উত্তোলন করে রেল লাইন নির্মানের কার্যাদেশ পাওয়া ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স গ্রুপকে সরবরাহ করা হচ্ছিল বলে জানা গেছে।


মন্তব্য