kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কুমিল্লায় শিক্ষক মারধর করায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২৮



কুমিল্লায় শিক্ষক মারধর করায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে স্কুল শিক্ষক মারধর করায় কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে ওই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী। তার নাম তানিয়া আক্তার।

আজ সোমবার দুপুর ২টার পর কোন এক সময় সে আত্মহত্যার উদ্দেশে কীটনাশক পান করে এবং স্থানীয় ও কুমিল্লা হাসপাতালে চিকিৎসার পর তাকে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যায় সে।

নিহত তানিয়ার বাবার নাম সহিদুল্লাহ। তিনি অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা। আর মা জোৎস্না আক্তার।  

স্থানীয় সূত্র জানায়, কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা শাহ নুরুদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী তানিয়া আক্তারকে এক ছেলের পক্ষ হয়ে আরেক সহপাঠিনীকে চিঠি দেওয়ার অপরাধে মারধর করেন স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান। গতকাল রবিবার ও আজ সোমবার তাকে দুই দফা মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আজ সোমবার দুপুর ২টার দিকে তানিয়া শ্রেণি কক্ষের মধ্যেই কীটনাশক পান করে। প্রথমে তাকে কংশনগর স্থানীয় ক্লিনিকে এবং পরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায় সে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ার্ড বয় মো: শাহজাহান জানান, তানিয়া আক্তার নামে একজনকে বিকেল তিনটা ১০ মিনিটে এনে ভর্তি করা হয়। সে তরল কীটনাশক জাতীয় কিছু পান করেছে।

এ প্রসঙ্গে কথা বলার জন্য ওই স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে তানিয়ার চাচা মো: সুমন অভিযোগ করেন, স্কুলের শিক্ষক হাবিবুর রহমান নিহত তানিয়াকে স্যাটেলাইট ক্যাবেলের তার দিয়ে মারধর করে।

এ ব্যাপারে বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম কুমার বড়ুয়া সাংবাদিকদের জানান, কেউ অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য