kalerkantho


রাজশাহীতে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ১৯:৫০



রাজশাহীতে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

রাজশাহীতে ভুয়া প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ দেখিয়ে ১ কোটি ১৩ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে অগ্রণী ব্যাংকের একজন সাবেক শাখা ব্যবস্থাপককে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আজ রবিবার বিকেলে নগরীর ভেড়িপাড়া এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

গ্রেপ্তারকৃত ব্যাংক কর্মকর্তার নাম রফিকুল ইসলাম। তার বাড়ি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সরেরহাট গ্রামে। তিনি অগ্রণী ব্যাংকের বাজুবাঘা শাখার ব্যবস্থাপক ছিলেন।

দুদকের রাজশাহী সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক শেখ ফাইয়াজ আলম জানান, রফিকুল ইসলাম অগ্রণী ব্যাংকের বাঘা উপজেলার বাজুবাঘা শাখায় দায়িত্ব পালনকালে প্রায় ১৫-২০টি ভুয়া প্রতিষ্ঠানের নামে ১ কোটি ১৩ লাখ টাকা ঋণ ইস্যু করেন। তারপর তিনি অবসরে চলে যান। পরে এই ঋণের টাকা আদায় না হলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ নিরীক্ষক দল পাঠান। ওই নিরীক্ষা দল সরেজমিনে তদন্ত করে ঋণ গ্রহণকারী কোনো প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব খুঁজে পাননি। এরপর গত ২০ জুলাই ব্যাংকের বাজুবাঘা শাখার ব্যবস্থাপক ইসহাক আলী বাদী হয়ে বাঘা থানায় রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে চারটি মামলা করেন। পরে থানা থেকে মামলাগুলো দুর্নীতি দমন কমিশনে পাঠানো হয়। এই চারটি মামলার একটি তদন্ত কর্মকর্তা হচ্ছেন দুদকের সহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন। তাঁর তদন্তাধীন মামলায় ভুয়া ঋণ দিয়ে অগ্রণী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ লাখ টাকা আত্মাসাতের অভিযোগ রয়েছে। ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেন আলমগীর হোসেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আলমগীর হোসেন বলেন, বিকেল সাড়ে তিনটায় গ্রেপ্তার করে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। পরে অন্য তিনটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হবে।


মন্তব্য