kalerkantho


সাভারে পৃথক স্থান থেকে চার মৃতদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৫৯



সাভারে পৃথক স্থান থেকে চার মৃতদেহ উদ্ধার

সাভারে পৃথক স্থান থেকে একজন নারী পোশাক শ্রমিকসহ চারজনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ রবিবার সকালে উপজেলার বিরুলিয়া, তেঁতুলঝোড়া ও ভাকুর্তা ইউনিয়ন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ সকল ঘটনায় সাভার থানায় পৃথক চারটি মামলা হয়েছে।

জানা গেছে, সাভারের তেতুঁলঝোড়া ইউনিয়নের হেমায়েতপুরে জয়নাবাড়ি এলাকায় একটি রিকশার গ্যারেজে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক নৈশপ্রহরীর মৃত্যু হয়। নিহত নৈশপ্রহরীর নাম মো. হেলাল উদ্দিন (৬০)। তিনি নরসিংদী জেলার মনোহরদি থানার তেলিকান্দা গ্রামের মিয়ার উদ্দিনের ছেলে।  

আজ রবিবার ভোররাতে জয়নাবাড়ি এলাকার মকবুল হোসেনের মালিকানাধীন জমিতে ভাড়া দেওয়া একটি অটোরিকশার গ্যারেজে এ ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।  

হেলাল উদ্দিনের মেয়ে পারভিন জানান, তার বাবা স্থানীয় রবিউল আলম ও মুনসুর আলীর রিকশার গ্যারেজে নৈশপ্রহরীর কাজ করতেন। রবিবার সকালে গ্যারেজের মালিকরা তাদেরকে বলেন তার বাবা দুর্বৃত্তদের হামলায় মারা গেছেন। এখন বাবার অবর্তমানে তারা পরিবার নিয়ে বিপাকে পড়েছেন।

তবে স্থানীয়দের অভিযোগ, গ্যারেজ মালিক রবিউল ও মনুসুর স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মকবুলের জমি ভাড়া নিয়ে রিকশার গ্যারেজ করেছেন। সেখানে বিদ্যুতের আবাসিক মিটার দিয়ে বাণিজ্যিকভাবে অটোরিকশা ও ইজিবাইকে চার্জ দেওয়া হয়। গতকাল শনিবার রাতের কোন এক সময় নৈশপ্রহরী হেলাল উদ্দিন অবৈধভাবে চার্জ দেওয়ার এলোমেলো বিদ্যুৎলাইনে জড়িয়ে মারা যান।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহ আলম জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্টেই নৈশপ্রহরীর মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিক আলামতে পাওয়া গেছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অপর এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার হয় সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভিতর থেকে। আজ ভোরে অজ্ঞাতপরিচয় হিন্দু সম্প্রদায়ের এক ব্যক্তির মৃতদেহ সেখানে ফেলে রেখে যায় অজ্ঞাত ব্যক্তিরা।

এ বিষয়ে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা: আমজাদুল হক জানান, ভোরে দুজন অজ্ঞাত ব্যক্তি অপর এক ব্যক্তিকে অসুস্থ বলে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসে। তারপর তারা রিকশা ভাড়া দিয়ে আসি বলে দ্রুত হাসপাতাল থেকে সটকে পড়ে। নিরাপত্তাকর্মীরাও তাদের ধাওয়া করে ধরতে পারেনি। পরে হাসপাতালে আনা ওই ব্যক্তিকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান কর্তব্যরত চিকিৎসক। এরপর তারা বিষয়টি থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এদিকে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের বউবাজার এলাকার মৃত হাবিবুল্লার বাড়ির ভাড়াটিয়া রিকিবুল ইসলামের স্ত্রী পোশাক শ্রমিক সেলিনা (১৯) পারিবারিক কলহের জের ধরে ঘরের দরজা বন্ধ করে আড়ার সাথে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার রাতের কোনো এক সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সেলিনা ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট থানা এলাকার বাসিন্দা।

অপরদিকে ভাকুর্তা ইউনিয়নের শ্যামলাশী গ্রামে এলাকার একটি দেওয়াল ঘেরা জমির ভিতর থেকে 
অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির(৫০) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে সাভার থানা পুলিশ। নিহতের পরণে ছিল লুঙ্গি ও গেঞ্জি।

সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম কামরুজ্জামান পৃথক স্থান থেকে মৃতদেহগুলো উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।  


মন্তব্য