kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নড়াইলে ৩ সেবাইতকে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি

নড়াইল প্রতিনিধি    

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:৪৩



নড়াইলে ৩ সেবাইতকে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি

এবার ডাকযোগে নড়াইল সদরের ৩টি সেবাশ্রমের সেবাইতকে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সদরের আগদিয়ার চর মহাশস্মান সেবাশ্রম মন্দিরের পুরোহিত উত্তম গোসাই, আগদিয়ারচর দামপাড়ার শ্রী শ্রী হরিগুরুচাঁদ মতুয়া মিশন সেবাশ্রমের প্রধান সেবক বিমল গোসাই এবং নলদির চর সার্বজনিন দূর্গা মন্দিরের পুরোহীত সুজীত গোসাইকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ডাকযোগে উড়ো চিঠি দেওয়া হয়েছে।

গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে হত্যার হুমকি দেওয়া এই চিঠি তাদের হাতে আসে। এ ঘটনায় আজ সোমবার বিকেলে নড়াইল সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে (যার নং ৩৯২ তারিখ ১০-১০-১৬)।

এর আগেও গত ২২ জুলাই একই হাতের লেখায় সদরের এই তিন সেবাইতকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে উড়ো চিঠি দেওয়া হয়। এ ঘটনায় গত ২৩ জুলাই নড়াইল সদর থানায় জিডি করেছিল ভুক্তভোগীরা (যার নং ৭৯৬ তারিখ ২৩-০৭-১৬)।

আগদিয়ার চর দাসপাড়া শ্রী শ্রী হরিগুরুচাঁদ মতুয়া মিশন সেবাশ্রমের প্রধান সেবক বিমল গোসাই বলেন, রবিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে খবর পেয়ে নলদির চর সার্বজনিন দূর্গা মন্দিরের পুরোহীত সুজীত গোসাই ৩টি চিঠি নিয়ে আসেন। চিঠিতে তাকে উল্লেখ করে লেখা আছে, 'বিমল তোমার ধর্মের ওপরে অনেক টান, আগের চিঠির পরেও তুমি দেশ ছাড়নি। এবার দেশ ছাড়ো এবং ধর্ম ত্যাগ করো নাহলে দেহত্যাগ করতে হবে। ' 

তিনজন পুরোহিতের চিঠিতে প্রায় একই ভাষা ব্যবহার করা হলে ও চিঠির শেষে কোন নাম নেই এবং খামের ওপরেও প্রেরকের কোন ঠিকানা নেই বলে জানিয়েছেন পুরহিতেরা।

এ প্রসঙ্গে নড়াইল জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অশোক কুমার কুন্ডু জানান, আগের সেই তিনজন সেবাইতকে এবার ডাকযোগে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আমারা পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েছি, তারা তৎপর হয়েছেন।

এ ব্যাপারে নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) দেলোয়ার হোসেন জানান, ঘটনা জানার পরপরই মন্দিরগুলোতে পুলিশের টহল বাড়ানো হয়েছে। অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে। থানায় জিডি এন্ট্রি করা হয়েছে। পুলিশ সুপার অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছেন। পুলিশ তৎপর আছে। দ্রুতই ঘটনার হোতাদের বের করা হবে।

এদিকে এ ঘটনার পরে এলাকার সনাতন ধর্মবলম্বীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তারা নিজেদের নিরাপত্তা বিধান করাসহ এলাকার শান্তি বিনষ্টকারি চক্রকে সনাক্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

 


মন্তব্য