kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্কুলছাত্রী আহত

শেরপুরে পৃথক বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু

শেরপুর প্রতিনিধি    

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:২৬



শেরপুরে পৃথক বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু

শেরপুরে পৃথক বজ্রপাতের ঘটনায় দুই কৃষকের মৃত্যু এবং এক স্কুলছাত্রী আহত হয়েছেন। এতে মারা গেছে একটি গাভিও।

গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় এ পৃথক বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন ঝিনাইগাতী উপজেলার দক্ষিণ দাড়িয়ারপাড় গ্রামের মৃত সিদ্দিক আলী গেদা মিয়ার ছেলে সাদা মিয়া (৩৭) ও ঝিনাইগাতী সদর ইউনিয়নের দড়িকালীনগর গ্রামের মৃত কছিমদ্দিন মণ্ডলের ছেলে বছিরদ্দিন মণ্ডল (৬০)।

নকলায় বজ্রপাতের ঘটনায় আহত নামাকৈয়াকুড়ি গ্রামের বিল্লাল হোসেনের মেয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রী বিজলী বেগম নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। বজ্রপাতে ঝিনাইগাতীর দারিয়ারপাড় গ্রামে একটি গাভিও মারা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল রবিবার বিকেল থেকেই বজ্রপাতসহ ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছিল। বৃষ্টির মধ্যেই সন্ধ্যায় ধানশাইল বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে বজ্রপাতে মারা যান দক্ষিণ দাড়িয়ার পাড় গ্রামের সাদা মিয়া। প্রায় একই সময় মাঠ থেকে বাড়ি ফেরার পথে বজ্রপাতের শিকার হন দড়িকালীনগর গ্রামের বছির উদ্দিন মণ্ডল। গুরুতর অবস্থায় তাকে ঝিনাইগাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঝিনাইগাতী থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বজ্রপাতে দুজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, নকলায় বৃষ্টির সময় নামাকৈয়াকুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী বিজলী বেগম ঘর থেকে বের হলে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এ সময় মাটিতে পড়ে জ্ঞান হারায় সে। তাকে নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, প্রচণ্ড শব্দে ভয়ে এ অবস্থা হয়েছে বিজলীর। তবে সে এখন আশঙ্কামুক্ত।


মন্তব্য