kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:২২



চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য ২ হাজার ২২৫ কোটি ৬৭ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করেছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। আজ রবিবার দুপুরে কর্পোরেশনের কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে এ বাজেট ঘোষণা করেন তিনি।

সভায় ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার পাশাপাশি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের ৫৯২ কোটি ৬৬ লাখ টাকার সংশোধিত বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বাজেটে নিজস্ব উৎস কর ও অভিকর থেকে ২৪২ কোটি ৪৬ লাখ ৫২ হাজার টাকা, হাল ও অভিকর থেকে ৫৫০ কোটি ৮৯ লাখ ৪৮ হাজার, অন্যান্য কর থেকে ২২২ কোটি ২৭ লাখ টাকা, ফিস আদায় বাবদ ৬১ কোটি ৬৭ লাখ টাকা, জরিমানা বাবদ ৩০ লাখ টাকা, সম্পদ হতে অর্জিত ভাড়া ও আয় ৭২ কোটি ১২ লাখ টাকা, সুদ বাবদ ৫ কোটি টাকা, বিবিধ আয় থেকে ১৮ কোটি ১৫ লাখ টাকা, ভর্তুকি বাবদ আয় ২৪ কোটি ৫৫ লাখ টাকা, নিজস্ব উৎস থেকে প্রাপ্তি ১ হাজার ১৯৭ কোটি ৪২ লাখ টাকা। এ ছাড়াও ত্রাণ সাহায্য ২০ লাখ টাকা, উন্নয়ন অনুদান ৯৮৫ কোটি ১০ লাখ টাকা এবং অন্যান্য উৎস থেকে ৪২ কোটি ৯৫ লাখ টাকাসহ সর্বমোট ১ হাজার ২৮ কোটি ২৫ লাখ টাকা দেখানো হয়েছে। তা ছাড়াও বাজেটে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ, পরিচ্ছন্ন, সবুজ ও বাসযোগ্য নান্দনিক চট্টগ্রাম নগরী প্রতিষ্ঠার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা ব্যক্ত করা হয়েছে।

এ সময় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন তার বক্তব্যে বলেন, চট্টগ্রামকে গ্রিন ও ক্লিন সিটিতে পরিণত করা, নগরীর ছাত্রীদের ও কর্মজীবী মহিলাদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য বিশেষ রুটে ২০টি এসি বাস চালুকরণ, জলাবদ্ধতা নিরসনে ১৯৯৫ সালে প্রস্তাবিত ড্রেনেজ মাস্টার প্ল্যানের যুগোপযোগী বাস্তবায়ন, নগরীর যানজট নিরসনে বাস-ট্রাক টার্মিনাল স্থাপন, কালুরঘাটে গার্মেন্ট পল্লী স্থাপন, অত্যাধুনিক ও উন্নত সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত নগরভবন নির্মাণ, চট্টগ্রামের পতেঙ্গা ও ঠান্ডাছড়ি এলাকায় পর্যটনের উন্নয়ন, সাইক্লোন সেন্টারসহ স্কুল নির্মাণ, বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্ল্যান্ট স্থাপন, বাকলিয়া স্টেডিয়ামকে আন্তর্জাতিক মানের স্পোর্টস কমপ্লেক্স হিসেবে উন্নয়ন, জাইকার সহায়তার অত্যাধুনিক সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট ব্যবস্থার প্রবর্তন, নগরীতে বিদ্যমান অব্যবহৃত পাহাড়সমূহকে পরিকল্পিত উন্নয়নের আওতায় নিয়ে সেখানে বিনোদন ও পর্যটন, শিক্ষা, চিকিৎসা ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য আবাসন সুবিধা হিসেবে গড়ে তোলার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করা হয়েছে।

সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলমের সভাপতিত্বে বাজেট অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, সচিব আবুল হোসেন, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা নাজিয়া শিরিন ও কাউন্সিলরবৃন্দ।


মন্তব্য