kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মাদারীপুরে পুকুর ভরাট বন্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:১৫



মাদারীপুরে পুকুর ভরাট বন্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

মাদারীপুরে শতবর্ষী পুকুর ভরাট হওয়ার সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছে এক আইনজীবি। পুকুর ভরাট বন্ধ এবং পুকুর পুনরুদ্ধারে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে আবেদনে।

এ ছাড়াও অবৈধভাবে পুকুর ভরাট বন্ধ করতে নোটিশ দিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর। এদিকে এতো কিছুর পরেও নির্দেশ অমান্য করেই মাদারীপুর শহরের পুরানবাজারের ১ নম্বর পুলিশ ফাড়ি পুকুরটি দ্রুতগতিতে ভরাট করছে। আগে দুটি ড্রেজার দিয়ে ভরাট করা চললেও আজ রবিবার সকাল থেকে ৫টি ড্রেজার দিয়ে ভরাট কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

দুই একর তিন শতাংশের পুকুরটির মালিক জেলা প্রশাসন। এক বছর ধরে পুকুরটি ভরাট করার জন্য চেষ্টা চালায় স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্র। অপরদিকে পুকুরটি রক্ষা করার অনুরোধ জানিয়ে মাদারীপুর পৌরসভার মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ গত এক বছরে জেলা প্রশাসককে তিন দফা চিঠি দিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, আজ রবিবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট দায়ের করেন। সোমবার হাইকোর্টের অবকাশকালীন দ্বৈত বেঞ্চে রিট আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে বলে জানা গেছে।

রিটে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব, পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বন মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাদারীপুরের মেয়র মো. খালিদ হোসেন ইয়াদ, মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. কামাল উদ্দিন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার (এসপি) ও মাদারীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) বিবাদী করা হয়েছে।

এ ছাড়াও পরিবেশ অধিদপ্তর ফরিদপুর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. ছায়েফ উল্লাহ তালুকদার এদিন ওই  পুকুর ভরাট বন্ধের নির্দেশ দিয়ে নোটিশ করেছেন।

নোটিশে যুবলীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম জাহিদসহ তাদের গ্যাংদের পুকুরটি ভরাট বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন।

নোটিশে বলা হয়েছে, মাদারীপুর জেলা শহরের পুলিশ ফাড়ির পুকুরটি অবৈধভাবে ভরাট করছেন, যা পরিবেশ আইন অনুযায়ী শাস্তি যোগ্য অপরাধ। এই নোটিশের অনুলিপি জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ ৯ জনকে প্রদান করা হয়।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. ছায়েফ উল্লাহ তালুকদার বলেন, পুকুর ভরাট বন্ধের জন্য নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। যদি বন্ধ না হয় তাহলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মাদারীপুর পৌরসভার মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে পুকুর ভরাট বন্ধের নির্দেশ জানিয়েছেন। এর একটি অনুলিপি আমি পেয়েছি। এ ছাড়াও মহামান্য হাইকোর্টে পুকুর ভরাট বন্ধের নির্দেশ চেয়ে একটি রিট আবেদন করা হয়েছে। এই রিটে আমাকে বিবাদী করা হয়েছে। আমি জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ প্রশাসনের কাছে পুকুর ভরাট বন্ধের দাবি জানিয়ে একাধিক চিঠি দিয়েছি।
 
তিনি আরো বলেন, তারা আমাকে সহযোগিতা করেননি। মানববন্ধন করেছি। সেই সাথে সংশ্লিষ্ট একাধিক দপ্তরে স্বারকলিপি দিয়েও পুকুর ভরাট বন্ধের দাবি জানিয়েছি। আদালত আমার কাছে জবাব চাইলে আমি জবাব দেব। আমি বন্ধের জন্য সাধ্য মোতাবেক চেষ্টা করেছি।  


মন্তব্য