kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


তদন্ত কমিটি গঠন, ডিলারশিপ বাতিল

রামগঞ্জে ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণে প্রতারণার অভিযোগ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:৩৪



রামগঞ্জে ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণে প্রতারণার অভিযোগ

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ভাদুর, চণ্ডিপুর ও ইছাপুর ইউনিয়নে ডিলাররা বরাদ্ধকৃত চাল উত্তোলন করলেও হতরিদ্রদের মাঝে তা বিক্রি করেননি।

এ নিয়ে ভাদুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেন ভূঁইয়া গতকাল শনিবার রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় আজ রবিবার দুপুর ২টার দিকে লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনের এমপি ও তরিকত ফেডারেশনে মহাসচিব লায়ন আবদুল আওয়াল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কার্যালয়ে এক সভা হয়। সেখানে চাল উত্তোলন করে আত্মসাৎ ও ওজনে কম দেওয়ার ঘটনায় অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়। এ সময় আবুল খায়ের পাটোওয়ারী ও হাছান তারেকের ডিলারশিপ বাতিল করা হয়।

এদিকে, চাল বিতরণে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবু ইউছুফকে প্রধান করে তিন সদস্য এবং আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ শাহজাহানকে প্রধান করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে প্রথম ধাপে সেপ্টেম্বর মাসে ১ হাজার ৪২৯ জনের জন্য ৩০ কেজি করে চাল বরাদ্ধ দেয় সরকার। ৫ জন ডিলার তাদের বরাদ্ধকৃত চাল উত্তোলন করেন।

এ বিষয়ে রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবু ইউছুফ বলেন, চাল বিতরণে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ সময় দুজনের চালের ডিলারশিপ বাতিল করা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত সরকারি কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনের এমপি লায়ন আবদুল আওয়াল বলেন, সরকার হতদরিদ্রের সুবিধার্থে ১০ টাকা কেজিতে চাল বিক্রি করছে। এ বিষয়ে কোন অনিয়ম সহ্য করা হবে না। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পৃথক দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
 


মন্তব্য