kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অভিযুক্ত তিন যুবকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা

নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার তরুণী

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি    

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১৭:৩২



নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার তরুণী

নানাবাড়িতে বেড়াতে এসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে প্রতিবন্ধী এক তরুণী। এতে মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়ায় ওই তরুণীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার বিচার চেয়ে ভুক্তভোগী ওই তরুণীর বাবা বাদী হয়ে আজ শুক্রবার দুপুরে পুন্নি, আমির এবং  মিন্টু নামের তিন যুবকের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে।    

পুলিশ, ভুক্তভোগী পরিবার এবং এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বুদ্ধি ও বাকপ্রতিবন্ধী ওই তরুণীর (১৭) বাড়ি গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ইউনিয়ন এলাকায়। গত ঈদুল আজাহার দুই দিন পর তিনি পাশের উজানচর ইউনিয়ন এলাকার এক গ্রামে তার নানা বাড়িতে বেড়াতে আসেন। প্রতিদিনের মতো গত বুধবার রাত ৮টার দিকে তিনি তার নানা বাড়ির উঠানে একা পায়চারি করছিলেন। এ সময় ওই গ্রামের পুন্নি, আমির এবং মিন্টু নামের তিন যুবক তাকে জোর করে পাশের মরাপদ্মা নদীর পাড়ে নিয়ে যায়। সেখানে তারা তিনজন মিলে ধর্ষণ করে ওই তরুণীকে। পরে রাত ৯টার দিকে তাকে তার নানাবাড়ির কাছে এনে ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায় ধর্ষণকারীরা। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় তাকে প্রথমে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে রাজবাড়ী সদর হাসপালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার বিচার চেয়ে ভুক্তভোগী ওই তরুণীর বাবা আজ শুক্রবার দুপুরে বাদী হয়ে অভিযুক্ত পুন্নি, আমির এবং মিন্টুর বিরুদ্ধে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মির্জা আবুল কালাম আজাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে বলেন, "বুদ্ধি ও বাকপ্রতিবন্ধী তরুণী ধর্ষণ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ মাঠে নেমেছে। "

 


মন্তব্য