kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বাগেরহাটে দুর্গোৎসব শুরু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১২:৪০



বাগেরহাটে দুর্গোৎসব শুরু

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হয়েছে। সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বী শারদীয় দুর্গোৎসবে এবার বিশ্বের সবচেয়ে বেশি প্রতিমা নিয়ে তৈরি হয়েছে বাগেরহাটের সিকদার বাড়ি পূজামণ্ডপ।

এই মণ্ডপসহ আশপাশে প্রায় আধা কিলোমিটার ধরে সাজানো হয়েছে অপরূপ সাজে। দেশ-বিদেশের লাখ লাখ দর্শনার্থী, বিশিষ্ট গুণীজন ও ভক্তবৃন্দের পদচারণায় মুখরিত হতে শুরু করেছে এই পূজামণ্ডপ। এদিকে এই আয়োজনকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তাসহ নিজস্ব উদ্যোগে তিন শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে। নিরাত্তার স্বার্থে মণ্ডপে বসানো হয়েছে ৪৫টি সিসি ক্যামেরা।

বাগেরহাট সদর উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের হাকিমপুর গ্রামের বিশিষ্ট ব্যববসায়ী লিটন শিকদারের বাড়িতে সর্ববৃহত্তম পূজামণ্ডপ তৈরি করা হয়েছে। এই মণ্ডপ দুর্গাপূজার ৬০১টি প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছে।

দুর্গাপূজার অবিচ্ছেদ্য প্রতিমাগুলোর সাথে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে রামায়ণ ও মহাভারতের বিভিন্ন পৌরাণিক কাহিনী এবং দেব-দেবীদের প্রতিরূপ, রয়েছে আলোকসজ্জা। আয়োজকরা বলছেন, শুধু বাগেরহাটই না, প্রতিমার সংখ্যা ও আড়ম্বতার দিক থেকে এ বছর এটাই বিশ্বের সব থেকে বড় দুর্গাপূজার মণ্ডপ। এই পূজামণ্ডপের নেতৃবৃন্দ আশা করছেন, তাদের মণ্ডপে ভক্ত দর্শনার্থীদের ভিড় থাকবে নজরকাড়া। জেলার বিভিন্ন স্থান, অন্য জেলা এমনকি পশ্চিম বাংলা থেকেও আসবে দর্শনার্থী ও পূজারীরা। এমনকি বিশিষ্ট গুণীজন, অভিনেতা, অভিনেত্রী, শিক্ষাবিদসহ কয়েকজন মন্ত্রী আসার কথা রয়েছে। এবার বাগেরহাটের সিকদার বাড়ি সর্ববৃহত্তম পূজা মণ্ডপের সব থেকে বড় আকর্ষণ হলো কৈলাশ পর্বতের কাহিনীর কিছু বিষয় তুলে ধরা হচ্ছে পুকুরের মধ্যে।

দিব্যতনু দাসের নেতৃত্বে ১০ জন আর্টিস্ট পুকুরের মাঝখানে ৪০ ফুট উঁচু টাওয়ারে প্রতিমাটি কৈলাশ পর্বতের অংশ বিশেষ স্থাপন করেছেন। যেখানে সবার ওপর রয়েছেন মহাদেব। এরপর রাম, লক্ষণ, সিতা ও হনুমান। মহাদেব ও রামের হাত আশীর্বাদ করা অবস্থায় রয়েছে। যা দেখে মুগ্ধ হিন্দু ধর্মাবলম্বী ও দর্শনার্থীরা।

শিকদারবাড়ি দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি দুলাল শিকদার বলেন, ''ব্যক্তিগত উদ্যোগে শুরু থেকেই এলাকার মানুষের উৎসাহ এবং সহযোগিতা পেয়ে আসছি। তাদের পরামর্শ ও উপদেশ আমার অনেক কাজে লাগছে। ২০১০ সালে ৩০১টি প্রতিমা নিয়ে এই মন্দিরে দুর্গাপূজা শুরু হয়। গত বছর ছিল ৪৫১টি প্রতিমা। এ বছর আমরা ৬০১টি প্রতিমা নিয়ে উপমহাদেশের সব থেকে বড় দুর্গাপূজার আয়োজন করেছি। এখানে আসলে দর্শনার্থীদের মন ভরে যাবে। শিকদারবাড়ি পূজামণ্ডপে ১৪ জন সহকারী নিয়ে ছয় মাস ধরে প্রতিমা তৈরি করেছেন খুলনার কয়রা উপজেলার হাতিয়ার ডাঙ্গা গ্রামের কারিগর বাবু বিজয় কৃষ্ণ বাছাড়।


মন্তব্য