kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:০৭



পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম

বরগুনার পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল আলমকে নিয়োগের বৈধতা নিয়ে বির্তক ওঠেছে। ওই নিয়োগের উপযুক্ত ও বৈধ নথিসহ গতকাল (৬ অক্টোবর) বিকেল ৪টার মধ্যে স্বশরীরে হাজির হওয়ার কথা থাকলেও তিনি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হাজির হননি।

বিদ্যালয় জাতীয় করণের আগে তিনি ব্যবস্থাপনা কমিটি কতৃর্ক তিনি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ প্রাপ্ত হন।

এর আগে গত ৩ অক্টোবর তাকে হাজির হতে নির্দেশ দেন পাথরঘাটার ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. ইকবাল হোসেন।

পাথরঘাটা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মোস্তফা আলম বলেন, প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল আলমকে মৌখিকভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছে যে তিনি প্রধান শিক্ষক পদে আর নেই। এ বিষয় শনিবার (৮ অক্টোবর) জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে পরবর্তি করণীয় নির্ধারণ করা হবে।

পাথরঘাটা উপজেলা নিবার্হী কর্মকতার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল আলমের বিরুদ্ধে নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয় অভিযোগ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় পাথরঘাটার ভারপ্রাপ্ত ইউএনও মো. ইকবাল হোসেন গত ৩ অক্টোবর ০৫.১০.০৪৮৫.০০৮.০২.১৬ নম্বরের স্বারকে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্রসহ স্বশরীরে ইউএনও কার্যালয়ে মো. নূরুল আলমকে উপস্থিত হয়ে লিখিত বক্তব্য দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (বিকেল সাড়ে ৫টা) প্রধান শিক্ষক ওই কার্যালয় হাজির হননি।

অভিযোগ প্রসংঙ্গে পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল আলম বলেন, আমি বৈধ প্রধান শিক্ষক, তবে বরগুনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের (শিক্ষা) কাছে নিয়োগ সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্র প্রদর্শন করা হয়েছে। সময়ের অভাবে ইউএনও কাছে নির্দিষ্ট সময়ে হাজির হওয়া যায়নি।

জানতে চাইলে পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের তৎকালিন সভাপতি ও পাথরঘাটা পৌরসভার মেয়র মো. আনোয়ার হোসেন আকন বলেন, “এ বিষয়ে অনেক ঝামেলা আছে, পরে কথা বলবো। ”

এ ব্যপারে পাথরঘাটার ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. ইকবাল হোসেন বলেন, “বিদ্যালয়টি সম্প্রতি জাতীয়করণ হওয়ায় যাবতীয় কাগজপত্র দেখভাল করা হচ্ছে। কিন্তু প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল আলম তার নিয়োগপত্রসহ এ সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্র যাছাই বাছাই করতে অসহযোগিতা করছেন। তবে তার নিয়োগের বৈধতা নিয়ে অভিযোগ ওঠায় তদন্ত করা হচ্ছে। ”

উল্লেখ্য, পাথরঘাটা কেএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালটি উপজেলা সদরে ১৯২৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এবং উপজেলার প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। গত ১৭ জুলাই বিদ্যালয়টি সরকার জাতীয় করণ করে। প্রধান শিক্ষক মো. নূরুল আলম জাতীয় করণের আগে এবছর  ৪ মে প্রধান শিক্ষক হিসেবে বিদালয় ব্যবস্থাপনা কমিটি কতৃর্ক  নিয়োগ প্রাপ্ত হন।


মন্তব্য