kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সিরাজগঞ্জে আটক জেএমবি সদস্যরা ৩ দিনের রিমান্ডে

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

৪ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:০৩



সিরাজগঞ্জে আটক জেএমবি সদস্যরা ৩ দিনের রিমান্ডে

সিরাজগঞ্জে আবারো আটক হলো জঙ্গি সংগঠন জেএমবির তালিকাভুক্ত ৩ সহোদর। এ নিয়ে একই পরিবারের চারজনসহ জেলার ২৮ জনকে আটক করল গোয়েন্দা পুলিশ।

ওই পরিবারের আরেক সদস্য বগুড়ায় বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে নিহত হয়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে আটক ওই তিন জেএমবি সদস্যকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাদের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জর করে।  

আটককৃতরা হলেন- সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার জামুয়া গ্রামের আবু বকর সিদ্দিদের ছেলে মোঃ সানাউল্লাহ (৪৮), লিয়াকত উল্লাহ (৩৮) এবং মোঃ বরকতুল্লাহ (৩০)। এদের বিরুদ্ধে বগুড়া ও সিরাজগঞ্জে জঙ্গি কর্মকাণ্ড পরিচালনা অভিযোগে মামলা রয়েছে।
 
এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মোহাম্মদ ওহেদুজ্জামান জানান, জেএমবি সদস্য এই ৩ ভাই গোপনে জঙ্গি তৎপরতার অংশ হিসেবে মঙ্গলবার সকালে সলঙ্গা থানার হাটিকুমরুলে অবস্থান করছিল- এমন সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে হাতেনাতে তাদের আটক করে।  

তিনি আরো জানান, আটককৃতরা বগুড়ার একটি সন্ত্রাসী মামলায় জামিনপ্রাপ্ত এবং গত ২০ সেপ্টেম্বর সিরাজগঞ্জের সলঙ্গার এরান্দহ হতে জেএমবির জেলা শাখার সভাপতিসহ ৪ জেএমবি সদস্য গোলাবারুদ, জিহাদী বই নিয়ে আটকের মামলায় এরা পলাতক আসামি ছিল। এদিন পুলিশ তাদের ঘেরাও করলে এই তিনজন জঙ্গি পুলিশের চোখ এড়িয়ে পালিয়ে যায়।
 
এদিকে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার জামুয়া গ্রামের স্কুল শিক্ষক আবু বকর সিদ্দিদের প্রতিবেশিরা জানান, এই পরিবার জঙ্গি তৎপরতার বেশ আগে থেকেই জড়িত বলে আমরা জানতাম। আবু বকর সিদ্দিদের ছেলে তরিকুল ইসলাম সিরিজ বোমা হামলার এজাহারভুক্ত আসামি এবং দীর্ঘ ১১ মাস জেলে থাকার পর দুর্বল চার্জশীটের কারণে সে অভিযোগ থেকে অব্যহতি পায়। তার পর থেকে সে পলাতক ছিল। এরপর ২০১৫ সালে বগুড়া জেএমবি বোমা তৈরির সময় তিনি মারা য়ান। সেখান থেকে উদ্ধার করা পাসপোর্ট থেকে পুলিশ তার পরিচয় নিশ্চত হয়।  

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, চলমান জঙ্গি নিধন অভিযানে গত দুই মাস আগে তারাশ মাদ্রাসা থেকে তরিকুলের বোন জামাই ও আটক এই তিনজন মিলে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে অভিযান চালিয়ে আত্বঘাতী দলের ৮ নারী সদস্যসহ মোট ২৮ জনকে আটক করেছে জেলা পুলিশ।


মন্তব্য