kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দুর্গোৎসবকে ঘিরে গোপালগঞ্জে উৎসবের আমেজ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি    

৪ অক্টোবর, ২০১৬ ১৫:৩৪



দুর্গোৎসবকে ঘিরে গোপালগঞ্জে উৎসবের আমেজ

হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গোৎসব। আগামী ৭ অক্টোবর ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের এ মহোৎসব শুরু হবে।

উৎসবকে ঘিরে জেলাব্যাপী চলছে প্রতিমা তৈরি ও মণ্ডপ সাজসজ্জার কাজ। নিখুঁতভাবে কাজ ফুটিয়ে তুলতেই সর্বোচ্চ মনোযোগ প্রতিমাশিল্পীদের।

গোপালগঞ্জের পাঁচটি উপজেলায় এ বছর ১১৫৪টি মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এসব মণ্ডপ হবে নানা অনুষ্ঠান। আনন্দ উৎসবে মেতে উঠতে প্রস্তুতি নিচ্ছে জেলাবাসী। হিন্দু সম্প্রদায়ের উৎসব হলেও এ উৎসব ইতিমধ্যে গোপালগঞ্জে সার্বজনিনতা পেয়েছে। সব ধর্মের মানুষই উৎসব আয়োজনে যোগ দিয়ে থাকেন।

ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির কাজ প্রায় শেষ করে ফেলেছেন শিল্পীরা। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই তাঁরা প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ করবেন বলে জানিয়েছেন।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ জেলায় সব ধর্ম-বর্ণের মানুষের সহযোগিতায় এ বছরও জেলায় সাড়ম্বরে দুর্গোৎসব হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ডা. অসিত কুমার মল্লিক। তিনি বলেন, জেলায় এ বছর ‌১১৫৪টি পূজামণ্ডপে দুর্গোৎসব পালনের প্রস্তুতি চলছে। অন্য বছরের মতো এ বছরও সাড়ম্বরে জেলাবাসী এ উৎসব পালন করবে।

গোপালগঞ্জ জেলা উদীচী সভাপতি মো. নাজমুল ইসলাম বলেন, গোপালগঞ্জ জেলা বরাবরই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জেলা। এখানে পূজা-পার্বনসহ নানা অনুষ্ঠান সব ধর্ম-বর্ণের মানুষ একসঙ্গে উদ্যাপন করে থাকে।

গোপালগঞ্জ পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো. আমিনুল ইসলাম জানিয়েছেন, প্রতিটি মণ্ডপে আয়োজকদের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা কমিটি, চারজন করে আনসার ও পুলিশের ভ্রাম্যমাণ টিম কাজ করবে, যাতে দুর্গোৎসবে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা না ঘটে। এ ছাড়া জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জেলাব্যাপী সর্বোচ্চ সর্তক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 


মন্তব্য