kalerkantho


শেরপুরে জেল সুপার ও প্রধান কারারক্ষীসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

শেরপুর প্রতিনিধি   

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৪৭



শেরপুরে জেল সুপার ও প্রধান কারারক্ষীসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

পরিবহন শ্রমিক আলমগীর হোসেন ওরফে বিশু ড্রাইভারকে নির্যাতনের অভিযোগে শেরপুরের জেল সুপার মজিবুর রহমান ও প্রধান কারারক্ষী বাবুল মিয়াসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে বিশু ড্রাইভারের স্ত্রী শান্তি বেগম বাদী হয়ে মূখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। শুনানি শেষে শেরপুরের মূখ্য বিচারিক হাকিম মো. সাইফুর রহমান মামলাটি গ্রহণ করেন। একই সাথে জখমীর ডাক্তারী সনদপত্র সংগ্রহ সাপেক্ষে ঘটনার বিষয়ে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য শেরপুর সদর থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, গত ২৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যার কিছুক্ষণ আগে জামিন পাওয়া আসামিদের আত্মীয়-স্বজনদের কাছ থেকে প্রধান কারারক্ষী বাবুল মিয়া, জাফর আলী ও সেলিম মোল্লা প্রকাশ্যে নগদ টাকা হাতিয়ে নেয়। এ সময় শ্রমিক নেতা আলমগীর হোসেন বিশু ড্রাইভারসহ কয়েকজন এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে কারারক্ষীরা তাদের কারা অঙ্গন থেকে বের করে দেয়। এরপর রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিশু ড্রাইভারকে জেল সুপার কারাগারে ডেকে পাঠায়। প্রধান ফটক পেরিয়ে ভেতরে প্রবেশের পরপরই প্রধান কারারক্ষী বাবুল, জাফর ও সেলিমসহ এক দল কারারক্ষী বিষু ড্রাইভারকে দা, লোহার পাইপ ও রডসহ লাঠিসোটা দিয়ে উপর্যুপরি পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। এ সময় সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে থানা পুলিশকে খবর দিয়ে কারারক্ষীরা আহত শ্রমিক নেতা বিশু ড্রাইভারকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পুলিশ বিশু ড্রাইভারের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে জেলা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। সে ৫ দিন যাবত সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মামলার সত্যতা স্বীকার করে বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট প্রদীপ দে কৃষ্ণ বলেন, ওই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার হলে কারাগারের অভ্যন্তরে চলা দীর্ঘদিনের অনিয়ম-দুর্নীতির বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষ অবহিত হবে এবং এতে অভিযোগকারী ন্যায্য বিচার পাবে।


মন্তব্য