kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পরিবহন শ্রমিককে ছাত্রলীগ দিয়ে পেটাল শিক্ষক

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ১৯:৪৫



পরিবহন শ্রমিককে ছাত্রলীগ দিয়ে পেটাল শিক্ষক

অসদাচরণের ঘটনায় দূরপাল্লার বাসের এক শ্রমিককে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক ছাত্রলীগ দিয়ে পিটিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন কাজলা গেট এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল রবিবার বিকেলে রংপুর থেকে ‘পথের সাথী’ নামের একটি বাসে রাজশাহী ফিরছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. এফ এম আলী হায়দার। বাসে ওঠার পর সিট নিয়ে বাসের এক শ্রমিকের সঙ্গে ওই শিক্ষকের কথা কাটাকাটি হয়। পরে বাসের ভেতরে ওই শ্রমিক সিগারেট ধরালে প্রতিবাদ করেন শিক্ষক আলী হায়দার। এ সময় পরিবহন শ্রমিক অসদাচরণ করলে বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের জানান ওই শিক্ষক। খবর পেয়ে ছাত্রলীগের ১৫-২০ জন নেতা-কর্মী কাজলা এলাকায় অবস্থান নেন। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাসটি কাজলায় পৌঁছালে শিক্ষক আলী হায়দার সেখানে নামেন। এ সময় তিনি ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের ওই শ্রমিককে দেখিয়ে দেন। তখন পরিবহন শ্রমিককে বাস থেকে নামিয়ে পেটাতে থাকে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। এক পর্যায়ে ওই কর্মচারী একটি চায়ের দোকানে ঢুকে পড়ে। দোকানি নাহিদ শ্রমিককে বাঁচাতে এগিয়ে এলে এ নিয়ে ছাত্রলীগ ও স্থানীয়দের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে ড. আলী হায়দার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘একটা ছেলে বাসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে। সেখানে বিড়ি খাওয়ার পাশাপাশি এক ছাত্রকে চড়ও মারে। আমরা বয়োজ্যেষ্ঠরা এর প্রতিবাদ করি। কাজলা গেটে ওই দুই ছাত্রের বন্ধুদের সঙ্গে ছেলেটার মারামারি বাঁধে। তখন রিকশা নিয়ে আমি বাসায় যাই। ’

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জু বলেন, ‘সংগঠনের কয়েকজন ছেলে সন্ধ্যায় কাজলায় ছিল। এক শিক্ষক বাস শ্রমিককে বকাবকি করছে দেখতে পেয়ে ওরা এগিয়ে যায়। তখন ওই শ্রমিক চায়ের দোকানে ঢুকে পড়ে। এ সময় সামান্য ঝামেলা হয়েছিল।


মন্তব্য