kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মেঘনায় জলদস্যুদের গুলিতে নিহত আরো এক জেলের লাশ উদ্ধার

ভোলা প্রতিনিধি   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৯:৫৬



মেঘনায় জলদস্যুদের গুলিতে নিহত আরো এক জেলের লাশ উদ্ধার

ভোলার মনপুরার পূর্ব পাশের মেঘনা নদীতে গতকাল শনিবার সকালে জলদস্যুদের গুলিতে এক জেলে নিহত হওয়ার এক দিন পর আরো এক জেলের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এই জেলেও ওই দিন জলদস্যুদের গুলিতে নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহত দুই জেলে পরিবারে এখন বইছে শোকের মাতম। এদিকে ভোলা ও হাতিয়া থানার ১২টি ডাকাতি মামলার আসামি জহুরুল ইসলাম নামের এক জলদস্যুকে স্থানীয় জেলেরা গতকাল শনিবার রাত ১২টার দিকে জংলার খাল সংলগ্ন মেঘনায় ট্রলার থেকে ধরে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। আটক জলদস্যু বর্তমানে মনপুরা থানা হেফাজতে রয়েছে।

জানা গেছে, মনপুরার জংলার খাল সংলগ্ন পূর্ব পাশের মেঘনা নদী থেকে আজ রবিবার দুপুর ২টার দিকে আরো এক জেলের লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে এখনো লাশের পরিচয় পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, লাশটি তজুমুদ্দিন থানার নিখোঁজ জেলে শফিকুল ইসলামের।  

স্থানীয় জেলেদের সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শনিবার মিয়াজমির শাহ সংলগ্ন মেঘনা নদীতে ইলিশ মাছ ধরা অবস্থায় জলদস্যুদের হামলার শিকার হয় তজুমদ্দিন উপজেলা থেকে মাছ ধরতে আসা জেলেরা। ওই দিন একই ঘটনায় জলদস্যুদের ছোঁড়া গুলিতে নিহত হন মনপুরার কামাল মাঝি ।

সূত্র আরো জানায়, নিহত জেলে কামাল মাঝির বাড়িতে চলছে এখন শোকের মাতম। তার স্ত্রী চার সন্তানের জননী জান্নাত বেগম স্বামীর মৃত্যুর সংবাদ শোনার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন। গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন কামাল মাঝির দুই ভাই মহিউদ্দিন, হোসেন ও তার বোন জামাই সাইফুল। নিহত কামাল মাঝিসহ ৩ জেলে পরিবারের সদস্যদের কান্না আর আহাজারিতে এলাকার আকাশ বাতাস ভারী হয়ে ওঠেছে।

এ ব্যাপারে তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম শাহীন মণ্ডল জানান, আমরা মনপুরার মেঘনা থেকে লাশটি উদ্ধার করে থানায় এনেছি। লাশটি তজুমদ্দিন মহাজান কান্দির জেলে শফিকুল ইসলামের। লাশটি পরিবারবর্গ নিয়ে যাওয়ার জন্য চাচ্ছেন।

মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহীন খাঁন বলেন, ১২ মামলার আসামি জহুরুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ রবিবার পাওয়া লাশটি তজুমদ্দিন থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
 


মন্তব্য