kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুক্তিপন দিয়ে ছাড়া পেল অপহৃত পাঁচ জেলে

ভোলা প্রতিনিধি   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৫৫



মুক্তিপন দিয়ে ছাড়া পেল অপহৃত পাঁচ জেলে

ভোলার মনপুরার মেঘনা নদী থেকে জলদস্যু মোল্লা বাহিনী কর্তৃক অপহৃত পাঁচ জেলে রহমান মাঝি, ইউনুছ মাঝি, নুরামিন মাঝি, ইউসুফ মাঝি ও রুহুল আমিন মাঝিকে মুক্তিপনের ২ লাখ ২৮ হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছে জলদস্যুরা। গতকাল শনিবার সকালে মনপুরার মিয়াজমির শাহ সংলগ্ন চর থেকে মাছ ধরা অবস্থায় তাদেরকে অপহরণ করে উড়ির চরে নিয়ে যায় জলদস্যুরা।

পরে জলদস্যুরা মুক্তিপণ আদায় করে শনিবার রাত ১০টার দিকে বদনার চরে অপহৃতদের রেখে যায়। অপহরণের ১৭ ঘণ্টা পর অপহৃত মাঝি উদ্ধার হওয়ায় পরিবারের সদস্যদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

উদ্ধার হওয়া জেলে রহমান মাঝি জানান, ইলিশ ধরা অবস্থায় হাতিয়ার জলদস্যু মোল্লা বাহিনীর রুবেল ও বাবুলের নেতৃত্বে জেলেদের ওপর হামলা চালিয়ে পাঁচটি ট্রলার থেকে পাঁচ জেলেকে ধরে নিয়ে উড়ির চর নামক স্থানে আটকে রাখে। মুক্তিপণের টাকা দিতে দেরী হওয়ায় তাদেরকে বেধড়ক মারধর করে জলদস্যুরা। বর্তমানে তারা মনপুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।  

তিনি আরো জানান, ২ লাখ ২৮ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে জলদস্যুদের দেওয়া হলে তারা আমাদের ছেড়ে দেয়। পরে জংলার খাল থেকে একটি ট্রলার গিয়ে বদনার চর থেকে আমাদের নিয়ে আসে।

অপহৃত জেলেরা অভিযোগ করে বলেন, প্রশাসন আমাদের কোন সহযোগিতা করছে না। আমরা জলদস্যুদের বিষয়ে জানালে অজানা কারণে তারা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্ট করেন। হাতিয়া জোনের কোস্টগার্ড মোটেও সহযোগিতা করছে না। তাদের নাকের ডগায় প্রায় প্রতিদিন জলদস্যুরা জেলেদের ওপর হামলা চালায়। জেলেদের আটক করে মুক্তিপন আদায় করে। জলদস্যুদের গুলিতে জেলেরা প্রাণ হারায়। এখন জলদস্যুদের ভয়ে জেলেরা মেঘনায় মাছ ধরতে সাহস পাচ্ছেন না।

এ বিষয়ে হাতিয়া জোনের কোস্টগার্ড প্রধান লেঃ কমান্ডার ওমর ফারুক জানান, আমরা ঘটনা শোনার পর অপহৃত মাঝিদের উদ্ধারের জন্য অভিযান পরিচালনা করি। আমাদের উদ্ধার অভিযানের কথা জলদস্যুরা জানতে পেরে জলদস্যুরা এলাকা ছেড়ে অন্য এলাকায় আত্মগোপন করে। তবে মেঘনায় আমাদের জলদস্যুদের ধরার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ ব্যাপারে মনপুরা থানার ওসি মোফাজ্জল হোসেন খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অপহৃত জেলেরা অপরণের পর আমাদেরকে জানায়নি। কিন্তু উদ্ধারের পর আমাদেরকে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, গতকাল শনিবার সকালে জেলেদের ওপর জলদস্যুরা অতর্কিত গুলি চালালে কয়েকজন জেলে আহত হয়। ডাকাতদের ছোঁড়া গুলিতে কামাল মাঝি নামক এক জেলে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। একই সময়ে ৬ জেলে ট্রলার থেকে ৬ মাঝিকে অপহরণ করে জলদস্যুরা।


মন্তব্য