kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শেরপুরের ঝিনাইগাতী সীমান্তে এবার মারা পড়ল বন্যহাতি

শেরপুর প্রতিনিধি   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:৫৭



শেরপুরের ঝিনাইগাতী সীমান্তে এবার মারা পড়ল বন্যহাতি

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের পানবর গ্রামের বাইদা পাড়া মসজিদের পাশে এবার এক বন্যহাতি মারা গেছে। ১ অক্টোবর শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে, পাহাড় থেকে লোকলয়ে নেমে আসা বন্যহাতির দল তাণ্ডব চালিয়ে পানবর চৌরাস্তার মোড়ের কাছে শহীদ মিয়া ও নজরুল ইসলাম নামে দুই কৃষকের ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত করেছে বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন।

তাৎক্ষণিকভাবে মৃত হাতিটির মৃত্যুর কারণ ও বয়স জানা যায়নি। তবে স্থানীয়দের হামলার মুখে বন্যহাতিটি মারা যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ওই এলাকায় বন্যহাতির দল অবস্থান করছিল বলে জানা গেছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত দুই সপ্তাহ ধরে ঝিনাইগাতীর কাংশা ইউনিয়ন ও আশপাশের এলাকায় খাদ্যের সন্ধানে পাহাড় থেকে নেমে আসা ৩০/৩৫টির একদল বন্যহাতি তাণ্ডব চালাচ্ছে। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে ওই এলাকায় মহিলা সহ দুজন বন্যহাতির আক্রমণে নিহত হয়েছেন। প্রতিরাতেই বন্যহাতির দল লোকালয়ে প্রবেশ করে ধানের ক্ষেত খেয়ে সাবাড় করা সহ নানা ক্ষয়ক্ষতি করছে। ফের ভোর হতেই হাতির দল পাহাড়ে চলে যাচ্ছে। হাতি তাড়াতে লোকজন মশাল জ্বালিয়ে, টিন পিটিয়ে শব্দ করে, জেনারেটরের আলো জ্বালিয়ে হইহল্লা-শব্দ করেও হাতির দলকে তাড়াতে পারছে না। হাতির আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে শনিবার সন্ধ্যায় নেমে আসা হাতির দলটিকে স্থানীয় অদিবাসীরা জেনারেটরে বৈদ্যুতিক শক দিয়ে তাড়াতে চেষ্টা করে। সেই জেনারেটরের বৈদ্যুতিক শকেই হাতিটি মারা যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে যেখানে বন্যহাতিটি মারা গেছে তার আশপাশেই বন্যহাতির দল অবস্থান করছে এবং স্থানীয় লেকজন হাতি তাড়াতে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে কাংশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক বলেন, একটি বন্যহাতি মারা গিয়েছে। তবে কিভাবে হাতি মারা গেছে, তা বলতে পারছি না। বন্যহাতির দল লোকালয়েই অবস্থান করছে, এবং সেখানকার লোকজন হাতি তাড়াতে ঘরবাড়ি ছেড়ে মাঠে অবস্থান করছেন।  

ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম রেজা পানবর এলাকায় বন্যহাতি মারা যাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হাতি এখনও লোকালয়ে রয়েছে। কিভাবে বন্যহাতিটির মৃত্যু হয়েছে সে বিষয়ে কোনো কিছু বলা যাচ্ছে না।

উল্লেখ্য, গত একবছরে ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদী সীমান্তে এ নিয়ে চারটি বন্যহাতি মৃত্যুর ঘটনা ঘটল।


মন্তব্য