kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


১৫ বছর বয়সেই সরকারি চাকরি!

ধামরাই(ঢাকা) প্রতিনিধি   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:৪৫



১৫ বছর বয়সেই সরকারি চাকরি!

সরকারি চাকরি নিতে যেখানে বয়স লাগে ন্যূন্যতম ১৮ বছর। অথচ মাত্র ১৫ বছর বয়সেই সরকারি চাকরি নিয়েছেন এক নারী।

এ ছাড়া তিনি এক কর্মস্থলেই কাটিয়ে দিয়েছেন ২৯টি বছর। এরূপ ঘটনা হয়ত ইতিহাস হয়ে থাকবে সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে। তবে প্রশ্ন থেকে যায় এই ২৯ বছরে কি কোনো কর্মকর্তার নজরে আসেনি যে সরকারি বিধিমালা ভঙ্গ করে চাকরিতে যোগদানের বিষয়টি?

অনুসন্ধানে জানা গেছে, টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার বাউসাইদ গ্রামের আফরোজা আক্তারে বয়স যখন ১৫ বছর ৩ মাস ১৮ দিন তখন তিনি সরকারি চাকরিতে যোগদান করেন। তাঁর এসএসসি সার্টিফিকেট ও জাতীয় পরিচয়পত্রে (জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর ১৯৭২৯৩২৯৫১২২৮৮৮৮৬) জন্ম তারিখ লেখা রয়েছে ১৩.০৩.১৯৭২ খ্রিষ্টাব্দ। তিনি চাকরিতে যোগদান করেছেন ০১.০৭.১৯৮৭ খ্রিষ্টাব্দে। তিনি দ্বিতীয় বিভাগে এসএসসি পাসও করেছেন ১৯৮৭ সনে। এতে দেখা যায় ওই শিক্ষিকার বয়স যখন ১৫ বছর ৩ মাস ১৮ দিন তখন তিনি চাকরিতে যোগদান করেন। প্রথমে তিনি যোগদান করেন টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার ধুনাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষিকা পদে।

যোগদানের পর থেকে তিনি একই বিদ্যালয়ে প্রায় ২৯ বছর কাটিয়েছেন। ওই সময় নাগরপুর থানার শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ছিলেন মো. জাহিদ হোসেন খান। তিনিই ওই শিক্ষিকার যোগদানপত্র গ্রহণ করেন। বর্তমানে ধামরাই উপজেলার ইসলামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা পদে চাকরি করছেন। এ বিদ্যালয়ে যোগদান করেছেন ০৩.০৪.২০১৬ ইং তারিখে। সরকারি বিধি মোতাবেক সরকারি চাকরি পেতে হলে একজন ব্যক্তির বয়স হতে হবে ন্যূন্যতম ১৮ বছর। কিন্তু ওই শিক্ষিকার বেলায় তা প্রযোজ্য হয়নি। ওই শিক্ষিকার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পিতার নাম মো. ফজলুল করিম, গ্রাম বাউসাইদ, থানা নাগরপুর জেলা টাঙ্গাইল। পিতার বর্তমান ঠিকানা সাং আদি টাঙ্গাইল, পো. ও জেলা টাঙ্গাইল।

১৮ বছর বয়স না হলেও কিভাবে সরকারি চাকরি নিয়েছেন এরূপ প্রশ্ন করা হলে শিক্ষিকা আফরোজা আক্তার বলেন, ''আমার বাবা ছিলেন থানা শিক্ষা অফিসার। তিনি সবকিছু বুঝেই চাকরি দিয়েছেন। '' এ ছাড়া তিনি বলেন, ''বয়স একটা ব্যাপারই না। বয়স কম থাকলেও অনেকেই সরকারি চাকরি করতেছেন। '' তিনি আারো বলেন, ''আমি রেজিস্টার্ড প্রাইমারি স্কুলে চাকরি নিয়েছি। তখন বয়স কম হলেও এটা সমস্যা নয়। যখন অবসরে যাব তখন সরকার বয়স কম ধরেই পেনশনের হিসাব করবে। ''

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন, ''সরকারি চাকরি পেতে হলে একজন নাগরিকের বয়স হতে হবে কমপক্ষে ১৮ বছর। তবে যেহেতু বিষয়টা জানলাম তদন্ত করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন পাঠাবো। '' 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শরিফুল ইসলাম বলেন, ''বয়স কম হলে সরকারি চাকরিতো দূরের কথা আবেদন করার যোগ্যতাই রাখেন না কোনো নাগরিক। ''

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন, ''১৮ বছরের নিচে কোনো নাগরিকের সরকারি চাকরির আবেদনই করতে পারবেন না। '' তিনি আরো বলেন, ''উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শিক্ষিকার বিষয়ে প্রতিবেদন পাঠালে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ''


মন্তব্য