kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ধর্ষকের ‘শাস্তি’ ৭৫ হাজার টাকা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৯:৫২



ধর্ষকের ‘শাস্তি’ ৭৫ হাজার টাকা!

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টাকারীকে স্থানীয় শালিস বৈঠকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার রাতে উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নের মোড়া গ্রামে ওই ছাত্রীর বাড়িতে এ শালিস বৈঠক বসে জরিমানার সিদ্ধান্ত নেন স্থানীয় মাতব্বরা।

সালিশে আগামীকাল শুক্রবারের মধ্যে জরিমানার টাকা পরিশোধের জন্য বলা হয়েছে। এদিকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও থানা পুলিশ জানিয়েছে এ ধরণের কোনো ঘটনা তাদের জানা নেই।

এলাকাবাসীসূত্রে জানা গেছে, ষষ্ঠ শ্রেণীর পিতৃহীন ওই ছাত্রী গত রবিবার সকালে প্রতিবেশী বাবুল শেখের মেয়ে ও তার সহপাঠিকে ডাকতে তার বাড়িতে যায়। এ সময় বাড়িতে অন্য কেউ না থাকার সুযোগে বাবুল শেখের দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছেলে হাসান ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এসময় মেয়েটির চিৎকারে লোকজন ছুটে এলে হাসান পালিয়ে যায়।

এ ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় মাতুব্বর ও হাসানের বাবা বাবুল শেখ ওই ছাত্রীর মাকে থানায় কোনো অভিযোগ দিতে নিষেধ করে ঘটনার মীমাংসা জন্য চাপ দেয়। এ ঘটনার তিনদিন পর গতকাল বুধবার রাতে ছাত্রীর বাড়িতে শালিস বৈঠকে হাসানের পরিবারকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করে শুক্রবারের মধ্যে পরিশোধ করতে বলা হয়। স্থানীয় মাতব্বরা। ওই বৈঠকে অন্যদের মধ্যে আজিজার মোল্লা,আব্দূল লতিফ, সোহরাব মোল্লাসহ স্থানীয় কয়েকজন মাতব্বর উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে উপস্থিত আজিজার মোল্লা জরিমানা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে অভিযুক্ত হাসানের বাবা এবং ওই ছাত্রীর মা দুজনের কেউই ওই বৈঠক ও জরিমানা সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এদিকে রূপাপাত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আাজিজার রহমান মোল্লা বলেন,এ রকম একটি ঘটনার কথা আমি শুনেছি। তবে আমার কাছে কেউ অভিযোগ করেননি বা শালিস বৈঠকের কথাও কেউ আমাকে জানায়নি।

বোয়ালমারী থানার ওসি মো.মিজানুর রহমান কালের কণ্ঠকে আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে জানান,থানায় এ ধরণের কোনো অভিযোগ কেউ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য