kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বরগুনার সেই মেয়রের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা

বরগুনা প্রতিনিধি   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৯:১৪



বরগুনার সেই মেয়রের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা

সালিস বৈঠককে কেন্দ্র করে আমতলী থানায় পৌর মেয়র ও প্যানেল মেয়রসহ দু’পক্ষের সমর্থকদের বাক বিতন্ডা, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং গুলির ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমতলী পৌরসভার মেয়র মোঃ মতিয়ার রহমানের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ সামসুল হক গাজী বাদী হয়ে আমতলীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এ অভিযোগ দায়ের করেন।

শুনানী শেষে আদালতের বিচারক বৈজয়ন্ত বিশ্বাস মামলাটি গ্রহন করেন এবং ঘটনার তদন্ত করে আগামী ২৩ অক্টোবরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, আমতলী পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মতিয়ার রহমান সমর্থিত ছাত্রলীগ নেতা সবুজ ম্যালকার ও মাহমুদুর রহমান প্রিন্স এবং প্যানেল মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জিএম মুসা সমর্থিত মোঃ মাহবুবুর রহমান-এর মধ্যেকার বিরোধ মেটাতে সালিস বৈঠকের উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে আমতলী থানায় উভয়পক্ষের লোকজন উপস্থিত হন। এ সময় বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পুলক চন্দ্র রায়ের উপস্থিতিতে নিজের পিস্তল বের করে আ’লীগ নেতা সামসুল হক গাজীকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি ছোড়েন আমতলী পৌরসভার মেয়র মোঃ মতিয়ার রহমান।

প্রসঙ্গত, সালিস বৈঠককে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার রাতে বরগুনার আমতলী থানায় পৌর মেয়র ও প্যানেল মেয়রের দু’পক্ষের বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে নিজের পিস্তল বের করে ফাঁকা গুলি ছোড়েন আমতলী পৌরসভার মেয়র মোঃ মতিয়ার রহমান। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয় পক্ষের শত শত সমর্থক। আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে আমতলী থানা ও এর আশে পাশের এলাকায়। পরে পুলিশের লাঠি চার্জে নিয়ন্ত্রনে আসে পরিস্থিতি।


মন্তব্য