kalerkantho


কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, দুটি হল বন্ধ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫২



ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, দুটি হল বন্ধ

কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে হল দখল করা নিয়ে দুটি হলের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় ওই হল দুটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সংঘর্ষে আহত নেতা-কর্মীদের কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে ইনস্টিটিউটের ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রাত ১০টার মধ্যে আবাসিক ছাত্রদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ক্যাম্পাসের ভেতরে ছাত্রদের জন্য লালন শাহ ও মীর মশাররফ হোসেন নামে দুটি হল রয়েছে। এ দুটি হলে ছাত্রলীগের হল শাখার কমিটি রয়েছে। কয়েক দিন আগে লালন শাহ হলের ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মীকে মীর মশাররফ হোসেন হলের নেতা-কর্মীরা মারধর করেন। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। আজ সন্ধ্যায় প্রতিশোধ নিতে ও আধিপত্য বিস্তার করতে সন্ধ্যায় উভয় হলের নেতা-কর্মীরা পাল্টাপাল্টি ধাওয়ায় লিপ্ত হন। এক পর্যায়ে তাঁরা লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

এতে ছাত্রলীগ কর্মী মনজরুল রানাসহ তিনজন আহত হন। মনজরুলের মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁকে অস্ত্রোপচার কক্ষে নেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে তাৎক্ষণিক ছাত্রলীগের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ মো. নুরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনার পরপরই দুটি হল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বুধবার রাত ১০টার মধ্যে ছাত্রদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে ক্যাম্পাস খোলা থাকবে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রবিউল ইসলাম বলেন, পুরো ক্যাম্পাস পুলিশের নিয়ন্ত্রণে। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আহত নেতা-কর্মীদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


মন্তব্য