kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাইনবোর্ড লাগাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিন দিনমজুরের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)    

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৯:০০



সাইনবোর্ড লাগাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিন দিনমজুরের মৃত্যু

সাভারে একজন ডেন্টাল সার্জনের খামখেয়ালিপনায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিন দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো দুই দিনমজুর।

ঘটনার পর থেকে ওই ডেন্টাল সার্জন পলাতক রয়েছেন। আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকার উপকণ্ঠ সাভারের আমিনবাজার এলাকার আব্দুল আলী মার্কেটের তৃতীয় তলায় অবস্থিত রশিদ ডেন্টাল সার্জারির সাইনবোর্ড লাগাতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় পল্লীবিদ্যুতের কর্মচারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।

আহত দিনমজুর সজিব জানান, সকালে ওই ডেন্টাল সার্জন তিনতলা ভবনের উপরে একটি সাইনবোর্ড লাগানোর কথা বলে তাদেরকে কাজে নিয়ে আসেন। পরে তারা মার্কেটের নিচতলা থেকে বিশাল আকৃতির একটি সাইনবোর্ড জিআই তার ও পাটের রশি দিয়ে তৃতীয় তলায় ওঠানোর চেষ্টা চালান। একপর্যায়ে সাইনবোর্ডটি উপরে ওঠানোর কাজে ব্যবহৃত জিআই তারটি পল্লীবিদ্যুতের সঞ্চালন তারের সঙ্গে লেগে সাইনবোর্ডটি ও জিআই তারটি বিদ্যুতায়িত হয়ে ঘটনাস্থলেই সাইদুর রহমান (৩০), শাহা-আলম (২৫) এবং গেদু মিয়া (২৮) নামের তিন যুবকের মৃত্যু হয়। আর গুরুতর আহত হন তিনিসহ (সজিব) দুইজন। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে পাঠিয়ে চিকিৎসা সেবা দেন।

এদিকে, ঘটনার পর থেকে ওই ডেন্টাল সার্জন মামুনুর রশিদ গা ঢাকা দিয়েছেন। ভবনটির গা ঘেষে পল্লীবিদ্যুতের সঞ্চালন লাইন নেওয়ায় ওই এলাকায় পল্লীবিদ্যুতের কর্মচারীদের গ্রেপ্তার দাবিতে ঘটনার পর বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। এ বিষয়ে পল্লীবিদ্যুৎ  সমিতি ৩ এর জোনাল অফিসের জেনারেল ম্যানেজার সৈয়দ ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, ওই ডেন্টাল সার্জনের গাফিলতি ও শ্রমিকদের অজ্ঞতার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, প্রায় সাত ফুট আকৃতির এত বড় বিশাল সাইনবোর্ডটি জিআই তারের সাহায্যে ওপরে ওঠানোর সময় জিআই তারের উপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হয়। সাইনবোর্ডটি ওপরের দিকে ওঠানোর সময় ওই ডেন্টাল ক্লিনিকের বিদ্যুতের মিটারের সঞ্চালন তারের সঙ্গে লেগে লিকেজ হয়েই জিআই তারটি বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়ে। এর ফলেই এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে পল্লীবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের কোনো গাফিলতি নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

ঢাকা জেলার ভারপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম মনির জানান, মরদেহ তিনটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত শেষে আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

 


মন্তব্য