kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ

মনপুরায় ইউএনও নেই তিন মাস ধরে

ভোলা প্রতিনিধি    

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:১৮



মনপুরায় ইউএনও নেই তিন মাস ধরে

উপকূলীয় জেলা ভোলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা মনপুরায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  (ইউএনও) নেই প্রায় তিন মাস। দীর্ঘ তিন মাস ধরে এ পদটি শূন্য থাকায় প্রশাসনিক কর্মকাণ্ডে নানাবিধ জটিলতা দেখা দিয়েছে।

এ ছাড়া ওই উপজেলার সাধারণ মানুষকেও প্রতিনিয়ত দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। প্রশাসনিক নানান জটিলতা দূর করতে দ্রুত মনপুরায় একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পদায়ন করতে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন স্থানীয়রা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৩ জুন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এরশাদ হোসেন খাঁন এডিসি জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি নিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত অন্য কোনো উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মনপুরার ইউএনও হিসেবে কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে চরফ্যাশনের তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম দায়িত্ব পালন করেন। গত ২৪ আগস্ট তিনিও অন্যত্র বদলি হয়ে যাওয়ার পর চরফ্যাশনের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে পদোন্নতি নিয়ে আসেন বোরহানউদ্দিন উপজেলার এসি ল্যান্ড মনোয়ার হোসেন। বর্তমানে তিনি মনপুরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি দায়িত্ব পাওয়ার পর গত ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর প্রথমবারের মতো মনপুরায় এসে অফিস করেছেন।

প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ। প্রতিদিন নিজ দপ্তর ছাড়াও বিভিন্ন দপ্তরের নানা কাজ করতে হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে। সাধারণ মানুষও আসেন বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে। এ ছাড়া মনপুরার এসি ল্যান্ডের দায়িত্বও থাকে মনপুরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ওপর। এ জন্য গুরুত্বপূর্ণ এ পদটি শূন্য থাকলে উপজেলার প্রশাসনিক বিভিন্ন কাজে নানামুখী সমস্যা দেখা দেয়। জরুরি অনেক সমস্যা নিয়ে এসে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন এলাকার বহু মানুষ। বর্তমানে অফিসের অনেক কাজ জমা হলে একসঙ্গে চরফ্যাশন নিয়ে স্বাক্ষর করে আনেন অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মচারীরা।

এ ব্যাপারে মনপুরার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনোয়ার হোসেন বলেন, "মনপুরার কাজ নিয়ে আসলে আগে করে দেই। গত ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর মনপুরায় অফিস করেছি। " এ ব্যাপারে মনপুরা উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সভাপতি মিসেস সেলিনা আক্তার চৌধুরী বলেন, "এ বিষয়ে বিভাগীয় কমিশনারের সঙ্গে  কথা বলেছি। " অল্প সময়ের মধ্যে একজন ইউএনও যোগদান করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। জেলা প্রশাসক মোহা. সেলিম উদ্দিন বলেন, "এ বিষয়ে বরিশালের বিভাগীয় কমিশনারকে অবহিত করা হয়েছে। খুব শিগগির তিনি মনপুরায় ইউএনও নিয়োগ দেবেন বলে জানিয়েছেন। " 


মন্তব্য