kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কেরানীগঞ্জে জুয়েলারি দোকানে ডাকাতি, ৮০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৪৬



কেরানীগঞ্জে জুয়েলারি দোকানে ডাকাতি, ৮০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট

কেরানীগঞ্জের জিনজিরা বাজার এলাকায় গোবিন্দা জুয়েলার্স নামে একটি জুয়েলারি দোকানে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতরা ওই জুয়েলারি দোকান থেকে প্রায় ৮০ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৩ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

আজ সোমবার রাত সাড়ে আটটার দিকে জিনজিরা বাজার এলাকায় ১০/১২ জনের একটি ডাকাত দল ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে কালাচান প্লাজা মার্কেটের নিচতলায় ওই জুয়েলারি দোকানে ঢুকে দোকান মালিকসহ কর্মচারীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটায়। ডাকাতি শেষে তারা ফের বোমা বিস্ফোরণ করে পালিয়ে যায়। এ সময় তাদের ছোড়া ককটেলে ফুটপাতের চটপটি বিক্রেতা রাজ্জাক (৩৫) ও পাপোস বিক্রেতা শাহাদাত (৩৮) আহত হয়। পরে আহতদের স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য তাদের স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠায়। এ ঘটনার খবর পেয়ে র‌্যাব, পুলিশ ও ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শফিউর রহমান ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছে।

গোবিন্দ জুয়েলার্সের কর্মচারি সুমন বলেন, রাত সাড়ে আটটার দিকে ১০/১২ জন যুবক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আমাদের দোকানের ভিতরে ঢুকে পড়ে। পরে তারা দোকানের মালিক গোবিন্দ চন্দ্র বর্মণ ও ম্যানেজার তপন বর্মণকে দোকান থেকে বের করে দেয়। তাদের কয়েকজনের হাতে পিস্তল ও কয়েকজনের হাতে চাপাতি ছিলো। এ সময় ডাকাতদের একজন পিস্তল দিয়ে দোকানে থাকা অপর কর্মচারি নারায়নকে আঘাত করে। পরে তারা দোকান থেকে সব স্বর্ণালংকার নিয়ে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটাতে ঘটাতে পালিয়ে যায়।

দোকানের মালিক গোবিন্দ চন্দ্র বর্মণ বলেন, আমার দোকান থেকে প্রায় ৮০ ভরি স্বর্ণ লুট করে নিয়ে গেছে। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ৩২ লাখ টাকা। এছাড়া ডাকাত দলটি নগদ ৩ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।  

তিনি আরও বলেন, ডাকাতরা প্রায় ১২/১২ জন ছিল। তাদের হাতে পিস্তল ও চাপাতি ছিল। ডাকাতির সময় প্রায় ৩০/৩৫টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। ৫ মিনিটেই তারা আমার দোকান খালি করে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনসারি জিন্নাত আলী বলেন, এ ঘটনার পরই আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।


মন্তব্য