kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কালকিনিতে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গাছ কেটে নিল ইউপি চেয়ারম্যান

মাদারীপুর প্রতিনিধি    

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:৩১



কালকিনিতে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গাছ কেটে নিল ইউপি চেয়ারম্যান

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার সাহেবরামপুর ইউনিয়নের উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের বাঁধাকে উপেক্ষা করে ৩ লক্ষাধিক টাকার রেইনট্রি গাছ কেটে নিল ওই এলাকার প্রভাবশালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামরুল আহসান সেলিম। এতে করে ওই এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে এবং উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

 এদিকে এ গাছ কাটার ঘটনায় তার বিরুদ্ধে কেউ প্রকাশ্যে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না এলাকাবাসী। গত শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয় ও উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, সাহেবরামপুর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভিতরের জায়গা থেকে শতবর্ষী ৫টি রেইনট্রি গাছ ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামরুল আহসান সেলিম তার লোকজন দিয়ে কেটে নিয়ে যায়। যার মূল্য প্রায় ৩ লক্ষাধিক টাকা। তবে বিষয়টি নিয়ে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কর্তৃপক্ষরা গাছ কাটতে বাঁধা দিলে উল্টো হুমকি-ধামকি দেন ওই ইউপি চেয়ারম্যান।

এ প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল আহসান সেলিম তার ক্ষমতা বলে ওই উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জায়গার গাছগুলো কেটে নিয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে সাহেবরামপুর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারী হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা ওই গাছ কাটতে বাঁধা দিয়েছি। কিন্তু চেয়ারম্যান বাধা মানেননি।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বপ্রাপ্ত ভারপ্রাপ্ত আরএমও রেজাউল করিম বলেন, আমাদের গাছ কেটে নিয়েছে ইউপি চেয়ারম্যান এই ঘটনাটি সত্য। তবে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জমির সমস্ত কাগজপত্র দেখে ইউএনও স্যারকে বিষয়টি অবগত করব।

তবে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল আহসান সেলিম বলেন, আমি জেলা পরিষদের অনুমতি নিয়েই গাছ কেটেছি।

এ প্রসঙ্গে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কৃপা সিন্দু বালা বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শাম্মী আক্তার বলেন, বিষয়টির ব্যাপারে আমি অবগত আছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য