kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাভারে স্কুল শিক্ষার্থীকে বেধড়ক মারধর

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫৪



সাভারে স্কুল শিক্ষার্থীকে বেধড়ক মারধর

ঢাকার অদূরে সাভারে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে শ্রেণিকক্ষে আটকে রেখে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই স্কুলের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছে ওই শিক্ষার্থীর পরিবার।

আজ শনিবার দুপুরে সাভার পৌর এলাকার ব্যাংক কলনি মহল্লায় অবস্থিত শহীদ ক্যাডেট একাডেমীতে এ ঘটনা ঘটে। অভিযোগ পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আহত ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে।  

আহত ওই শিক্ষার্থীর নাম মোঃ ইব্রাহীম খলিল। সে ওই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির আবাসিক ছাত্র। এদিকে এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত অধ্যক্ষ এবং প্রতিষ্ঠানটির দুই শিক্ষক গাঁ ঢাকা দিয়েছেন।

আহত শিক্ষার্থীর বাবা বজলুর রহমান অভিযোগ করেন, আজ দুপুরে ইব্রাহীম খলিল তার সহপাঠি সালমানের সাথে দুষ্টমির এক পর্যায়ে সে (সালমান) মাটিতে পড়ে গিয়ে আঘাত পায়। এতে সালমানের কপাল কেটে রক্ত বের হয়। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম তার ছেলে ইব্রাহীমকে রুমের ভিতর আটকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। এ সময় অধ্যক্ষকে সহযোগিতা করেন স্কুলের শিক্ষক শহিদুল ইসলাম (ইংরেজি) ও রায়হান হোসেন (সমাজ বিজ্ঞান)।

তিনি আরো বলেন, প্রতি মাসে রোজগার করা কষ্টের টাকায় ছেলেকে শহীদ ক্যাডেট একাডেমীতে ভর্তি করেছেন তিনি। যেখানে সরকারিভাবে শিক্ষার্থীদের ওপর মারধর করা নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, সেখানে সে আইন অমান্য করে তিন শিক্ষক মিলে তার ছেলেকে মারধর করে পা ভেঙ্গে দিয়েছে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার চান।

এদিকে শহীদ ক্যাডেট একাডেমীর পরিচালক মোঃ সায়েম জানান, আহত ইব্রাহীম খলিল ঢিল মেরে তার সহপাঠি সালমানের মাথা ফাটানোর ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ ইব্রাহীমকে ডেকে শাসন করেন। এ সময় বেত দিয়ে পেটানোর কারণে তার পিঠে ও বাম পায়ে সে কিছুটা আঘাত পায়।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম কামরুজ্জামান জানান, স্কুলছাত্রকে মারধরের ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


মন্তব্য