kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আকতার জাহানের সাবেক স্বামীর প্রতি সহকর্মীদের অনাস্থা; বিভাগ থেকে প্রত্যাহার

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:৪০



আকতার জাহানের সাবেক স্বামীর প্রতি সহকর্মীদের অনাস্থা; বিভাগ থেকে প্রত্যাহার

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহানের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় তাঁর সাবেক স্বামী ও একই বিভাগের শিক্ষক তানভীর আহমদ সহকর্মীদের অনাস্থার মুখে বিভাগের সব কার্যক্রম থেকে নিজেকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত চলা অ্যাকাডেমিক কমিটির সভা চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

এছাড়া আকতার জাহানের মৃত্যু ও মৃত্যুসংশ্লিষ্ট বিষয়ে গণমাধ্যম ও সামাজিক গণমাধ্যমে বিভাগ সম্পর্কিত যেসব বিষয় উঠে এসেছে তা তদন্ত করে দেখার জন্য বিভাগের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর একটি চিঠি দেওয়ারও সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সভা সূত্রে জানা গেছে, সহকর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় গত ১৯ সেপ্টেম্বর ১৬ জন শিক্ষক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন। আজকের একাডেমিক সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়। সহকর্মীদের অনাস্থার মুখে একপর্যায়ে তানভীর আহমদ নিজেই একাডেমিক কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করে নেন।

সভায় অংশ নেওয়া কয়েকজন শিক্ষক কালের কণ্ঠকে বলেন, “তানভীর আহমদ সভাপতি থাকাকালীনসহ বিভিন্ন সময়ে আকতার জাহানকে নানভাবে গালাগালি ও হয়রানি করেছেন, যার প্রত্যক্ষ সাক্ষী আমরা। এরকম কিছু ঘটলে বাধা দেওয়ার পাশাপাশি আমরা তাকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করি। তাছাড়া গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন পরিস্থিতিতে আমরা সভাপতিকে বলেছি তানভীর আহমদের সঙ্গে কাজ করা সম্ভব নয়। এমন অনাস্থার মুখে সভায় নিজেই অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করে নেন তানভীর আহমদ। ”

যদিও অনাস্থার মুখে তানভীর আহমদের নিজেকে প্রত্যাহারের বিষয়টি বিভাগের সভাপতি ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। সভা শেষে গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “আকতার জাহানের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে তানভীর আহমদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে তার পরিপ্রেক্ষিতে এবং বিভাগের শিক্ষকদের সর্বসম্মত মতামতের ভিত্তিতে তানভীর আহমদ বিভাগের সব কার্যক্রম থেকে সাময়িকভাবে নিজেকে প্রত্যাহার করার প্রস্তাব দেন। সভায় বিষয়টি সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করা হয়। ”

এছাড়া সভায় আকতার জাহানের মৃত্যুর পর তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে ‘আত্মহত্যার প্ররোচনার’ অভিযোগে মতিহার থানায় যে মামলা করা হয়েছে তা তদারকি করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিভাগের সভাপতিকে আহ্বায়ক ও সহকারী অধ্যাপক শাতিল সিরাজ, কাজী মামুন হায়দার ও আব্দুল্লাহীল বাকীকে সদস্য করে একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি নিয়মিতভাবে মামলার অগ্রগতি বিভাগকে অবহিত করবে। বিজ্ঞপ্তির বিবরণ অনুযায়ী, আকতার জাহানের মৃত্যু ও মৃত্যুসংশ্লিষ্ট বিষয়ে গণমাধ্যম ও সামাজিক গণমাধ্যমে বিভাগ সম্পর্কিত যেসব বিষয় উঠে এসেছে তা তদন্ত করে দেখার জন্য বিভাগের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর একটি চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্তও সভায় হয়েছে। এছাড়া আকতার জাহানের নামে বিভাগের সেমিনার লাইব্রেরিটির নামকরণ, বিভাগের সামনে তাঁর নামে ‘আকতার জাহান কর্নার’ স্থাপনের সিদ্ধান্ত হয়। পাশাপাশি বিভাগে একটি শোকবই খোলারও সিদ্ধান্ত হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, সভার শুরুতেই আকতার জাহানের অকালমৃত্যুতে শোকপ্রস্তাব গ্রহণ করা হয় এবং পরিবারকে সমবেদনা প্রকাশসহ তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এছাড়া আগামী রবিবার শোক পদযাত্রার পাশাপাশি শোকসভার আয়োজন করা হবে। একইসঙ্গে আগামীকাল শুক্রবার থেকে তিনদিন বিভাগে কালোব্যাজ ধারণ কর্মসূচিও গ্রহণ করা হয়।


মন্তব্য