kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কক্সবাজারে ছিন্নমূল শিশুদের হাতে বই তুলে দিলেন জেলা প্রশাসক

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:৩০



কক্সবাজারে ছিন্নমূল শিশুদের হাতে বই তুলে দিলেন জেলা প্রশাসক

কক্সবাজার শহরের সুবিধাবঞ্চিত ছিন্নমূল শিশুদের লেখাপড়া শেখানোর কার্যক্রম উদ্ভোধন করা হয়েছে। আজ বৃহষ্পতিবার দুপুরে ছিন্নমূল শিশুদের সংগঠন ‘বন্ধুশিশু’র পাঠ্য কার্য্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো: আলী হোসেন।

শহীদ মিনারের পাদদেশে ওরাই এবার হাতে বই নিয়ে লেখাপড়া করবে।

কক্সবাজার শহরের স্থানীয় কয়েকজন সংবাদকর্মী ছিন্নমূল শিশুদের নিয়ে বিগত কয়েক বছর ধরে কাজ করে আসছেন। সংবাদকর্মীরা এসব শিশুদের একত্রিত করে ‘বন্ধুশিশু’ নামের একটি সংগঠন গড়ে তোলেন। শহরের বিভিন্ন এলাকার সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের এনে এ সংগঠনের পতাকাতলে একত্রিত করা হয়।  এরকম উদ্যোগের ফলে ছিন্নমূল শিশুরাও একত্রিত হচ্ছে-একই ঠিকানায় এবং একই লক্ষ্যে।

কক্সবাজার শহীদ মিনারই আপাতত এসব শিশুদের ঠিকানা। ‘বন্ধুশিশু’ সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক সংবাদকর্মী ওমর ফারুক হিরু কালের কন্ঠকে বলেন, "আমরা কয়েকজন সংবাদকর্মীরাই মূলত এসব ছিন্নমূল শিশুদের নিয়ে কাজ করতে এসে এক অদ্ভুত ধরণের নেশায় জড়িয়ে পড়েছি। এসব শিশুরা এখন আমাদেরই যেন সুখ-দুঃখের সাথী হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওদের না দেখলে আমাদের আর ভাল লাগে না। " 

তিনি জানান, শিশুদের প্রায়শঃই খিচুড়ি খাওয়ানো হয়। সংবাদকর্মীরাই নিজেদের উদ্যোগে ওদের খাওয়ার ব্যবস্থা করে থাকেন। সেইসঙ্গে তাদের মাঝে পোশাকের ব্যবস্থাও করে দেওয়া হয়।

সংবাদকর্মী তৌহিদুল ইসলাম লিপু কালের কন্ঠকে বলেন, "এতদিন ধরে এসব শিশুদের নিয়ে আমরা শহীদ মিনারে বসতাম এবং ওদের লেখাপড়ায় মনোযোগী করার চেষ্টা করতাম। তবে এবার ওদের পাঠ্যকার্যক্রমে একটু বড় আকারের কর্মসুচি হাতে নেওয়া হয়েছে। " 

শিশুদের পাঠ্যকার্যক্রম নিয়েই আজ বৃহষ্পতিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে ছিন্নমূল শিশুদের হাতে বই তুলে দেন। তিনি লেখাপড়ার অন্যান্য উপকরণের জন্যও সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, "জেলা পর্যায়ে সংবাদকর্মীদের নিয়ে অনেক সমালোচনাও থাকে নানা মহলে। তবে কক্সবাজার জেলা শহরে এসে সংবাদকর্মীদেরই এক ব্যতিক্রমধর্মী মানবিকতার উদ্যোগ দেখে ভালই লাগছে। কক্সবাজারের একঝাঁক সংবাদকর্মী সংবাদ পরিবেশনের পাশাপাশি ছিন্নমূল শিশুদের নিয়ে যে মানবিক উদ্যোগ নিয়েছেন-এটা প্রশংসনীয় কাজ। "


মন্তব্য