kalerkantho


গোদাগাড়ীতে মহিষের মাংস খেয়ে ৮ জন অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:০০



গোদাগাড়ীতে মহিষের মাংস খেয়ে ৮ জন অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় অ্যানথ্রাক্স রোগে ৮ জন আক্রান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এনথ্রাক্স আক্রান্ত মহিষের মাংস খেয়ে উপজেলার মাকরান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আক্রান্তরা হলেন, গোদাগাড়ী উপজেলা মোহনপুর ইউনিয়নের মাকরান্দা গ্রামের সোলেমান আলীর ছেলে এমরান (৫০), আব্দুর রহমানের ছেলে মিজানুর (৪৭), আব্দুর রহিমের তিন ছেলে রফিকুল (৩৫), শফিকুল (৩২) ও মফিজুল (২৮) ও মেয়ে রওশন আরা (৫৫), লুৎফর রহমানের ছেলে রুহুল (৫০), আব্দুস কুদ্দুস এর ছেলে টুটুল (২৮)।

গোদাগাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, গত ১৩ সেপ্টম্বর ঈদ-উল-আযহার দিন উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নে মাকরান্দা গ্রামে একটি মহিষ কোরবানী করা হয়। কিন্তু ওই মহিষটি ছিল এনথ্রাক্স আক্রান্ত। ওই মহিষের মাংস কাটা, নাড়া চাড়া ও খাওয়ার কারণে অন্তত ৮ জন অ্যানথ্রাক্সে আক্রান্ত হয়ে পড়েন।

তাদের শরীরে অ্যানথ্রাক্স রোগের লক্ষণ দেখা দিলে রোগে আক্রান্ত এমরান, মিজানুর, শফিকুল ও রুহুলকে গোদাগাড়ী প্রেমতলী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের চিকিৎসা প্রদান করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকিদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে অ্যানথ্রাক্স রোগ যাতে না ছড়ায় সে জন্য বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম।

তিনি বিষয়টি অবহিত করে এ নিয়ে গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহ কর্মকর্তাকেও চিঠি দেন।


মন্তব্য