kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মেহেরপুরে বিএনপি নেতা ও তাঁর মেয়ে হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ কারাগারে

মেহেরপুর প্রতিনিধি    

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:০৯



মেহেরপুরে বিএনপি নেতা ও তাঁর মেয়ে হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ কারাগারে

মেহেরপুরে বিএনপি নেতা হামিদুর রহমান হেলাল ও তার মেয়ে সেতু হত্যা মামলার প্রধান আসামি মোস্তাফিজুর রহমান টিপু আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে বিচারক তাঁর জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন। আজ বুধবার দুপুরে মেহেরপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মহিদুজ্জামান এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মোস্তাফিজুর রহমান টিপু সদর উপজেলার যাদুখালী স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরত। এ ছাড়া তিনি স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ (স্বাশিপ) জেলা শাখার সভাপতি ও বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি) জেলা শাখার চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মামলার এজাহারে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২১ মার্চ সন্ধ্যায় মুজিবনগর উপজেলা বিএনপির ১ নম্বর যুগ্ম সম্পাদক পল্লী চিকিৎসব হামিদুর রহমান হেলালকে রতনপুরের নিজ বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে একদল সন্ত্রাসী। এ সময় তার কলেজপড়ুয়া মেয়ে সেতু বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা তাঁকেও কুপিয়ে আহত করে। পরদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সেতু। এ ঘটনায় হামিদুর রহমানের স্ত্রী সন্ধ্যা রানী বাদী হয়ে মুজিবনগর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় এসআই মুধুসুদন দত্তকে। পরে মামলাটি অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) দায়িত্ব দেওয়া হয়। সিআইডির এসআই আফাজ উদ্দিন মামলা তদন্ত সম্পন্ন করে মোস্তাফিজুর রহমান টিপুকে প্রধান আসামি করে চলতি বছরের ২৯ আগস্ট আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।  

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে সিএসআই নজরুল ইসলাম এবং আসামি পক্ষে আবদুল্লাহ আল আমিন আইনজীবীর দায়িত্ব পালন করেন।


মন্তব্য