kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শরীয়তপুরে ২১ মাসের শিশু ধর্ষণের শিকার

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০২:৪০



শরীয়তপুরে ২১ মাসের শিশু ধর্ষণের শিকার

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর সবুজবাগ এলাকায় ২১ মাস বয়সী একটি শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। রবিবার দুপুর ২টার দিকে একই গ্রামের  জাকের আলী বেপারী (১৮) শিশুটিকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ করেছে শিশুটির মা।

অসুস্থ অবস্থায় গতকাল সোমবার বিকালে শিশুটিকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গ্রামের মাতব্বরা ঘটনাটি মিমাংসা করে দিবে বলে আশাস দেয়ায় থানায় কোন মামলা দায়ের করেনি শিশুটির পরিবার।

ঘটনার শিকার ওই মেয়েটির পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর সবুজবাগ গ্রামের (ছাদেক আলী খানের) ২১ মাস বয়সী মেয়ে (সামিয়া)কে  ঘরে রেখে শিশুটির মা (মুন্নি) আক্তার (২৩) বাহিরে কাজ করছিলেন। শিশুটি ঘরের মধ্যে একা খেলা করছিল।

এই ফাকে প্রতিবেশী আজিজুল বেপারীর ছেলে জাকের আলী বেপারী (১৮) দুপুর ২টার দিকে  ওই বাড়িতে গিয়ে ঘরে ঢুকে দরজা জানালা বন্ধ করে দেয়। একটু পরে শিশুটির কান্নার শব্দ পেয়ে শিশুটির মা ঘরের দিকে ছুটে গেলে দরজা খুলে জাকের বেপারী (১৮) পালিয়ে যায়। শিশুটির মা শিশুটিকে কোলে নিতেই রক্তে শরীর ভিজে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরিবারের আর্থিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে ঢাকায় নিয়ে যেতে পারেনি শিশুটির পরিবার। সোমবার বিকেল ৪টার দিকে শিশুটিকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে তার মা। কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে ভর্তি করে দেয়। শিশুটি এখন শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ঘটনার শিকার ওই শিশুটির মা মুন্নি বেগম বলেন, আজিজুল বেপারীর ছেলে জাকের আলী বেপারী (১৮) রবিবার দুপুরে আমার ঘরে ঢোকলে প্রথমে আমি তাকে ঘর থেকে বের করে দেই। আমি জরুরি কাজে ঘরের বাইরে যাই। এই ফাঁকে আবার সে ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে। চিৎকার শুনে ঘরের দিকে আসতেই দরজা খুলে জাকের পালিয়ে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায়  স্থানীয় সেলিম ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে তাকে ঢাকা নিয়ে যেতে বলে। আমাদের আর্থিক অবস্থা ভাল না থাকায় তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। স্থানীয় মাতব্বর সামছুদ্দিন দেওয়ান ও মন্নান লস্কর বিষয়টি মিমাংসা করে দিবে বলেছে। তাই  আমরা মামলা করিনি। আমি জাকের আলী বেপারীর শাস্তি চাই।

এ ব্যাপারে কথা বলতে অভিযুক্ত জাকের আলী বেপারীর বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। ঘটনার পর থেকে জাকের আলী বেপারীকে এলাকায় দেখা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

গ্রামের মাতব্বর সামছুদ্দিন দেওয়ানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি। অন্য মাতব্বর মন্নান লস্কর বলেন, এই ঘটনা মিমাংসার ব্যাপারে আমার সাথে কারো কথা হয়নি। তবে সামছুদ্দিন দেওয়ান বিষটি নিয়ে মিমাংসা করে দিবে বলে আমি শুনেছি।  

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের চিকিৎসক রাজিব শংকর কর্মকার বলেন, সোমবার বিকেল ৪টার দিকে শিশুটিকে তার মা হাসপাতালে নিয়ে আসে। তার যৌনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পাই। দেখে মনে হয়েছে সে যৌন হ্যারেজম্যানের শিকার হয়েছে। শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়া হয়েছে।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম আলী মিয়া বলেন, একটি শিশু ধর্ষণের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে এমন একটি খবর আমরা শুনেছি। শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে আমাদের একজন পরিদর্শক পাঠানো হয়েছে। তবে এখনো আমাদের কাছে কোন লিখিত অভিযোগ আসেনি। আমরা ধর্ষকের অবস্থান নির্ণয় করার চেষ্টা করছি। লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


মন্তব্য