kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মাদারীপুরে স্কুলছাত্রী নিতু হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:২১



মাদারীপুরে স্কুলছাত্রী নিতু হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার নবগ্রাম ইউনিয়নের নবগ্রাম হাই স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী নিতু হত্যার ঘটনায় মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই স্কুলের সহপাঠিসহ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের আয়োজনে আজ সোমবার বেলা ১১টার দিকে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

 

পুলিশ, স্থানীয়, পারিবারিক ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার নবগ্রাম ইউনিয়নের আইসারকান্দি গ্রামে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় গতকাল রবিবার সকালে স্কুলে যাবার পথে নিতু মন্ডলকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে খুন করে প্রতিবেশী বীরেণ মন্ডলের ছেলে মিলন মন্ডল। এই ঘটনার প্রতিবাদে আজ সোমবার নবগ্রাম হাই স্কুলের উদ্যোগে ঘন্টাব্যাপী এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এই মানববন্ধনে সহপাঠিরাসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা ছাড়াও গ্রামবাসী অংশগ্রহণ করেন। এ সময় তারা খুনি মিলন মন্ডলের ফাসির দাবি জানান।

এ সময় সহপাঠি সম্পা, কলি, মুক্তাসহ আরো অনেকেই জানান, নিতু খুব হাসি খুশি মেয়ে ছিল। স্কুলের প্রতিটি প্রতিযোগিতায় সে অংশগ্রহণ করত। অনেক পুরস্কারও পেয়েছে। গ্রামের যে কোন অনুষ্ঠানে নিতু নাচ-গানে সবাইকে মাতিয়ে রাখতো। তাছাড়া পড়াশুনাতেও নিতু খুব ভালো ছিল। জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে। আগামীতেও আরো ভালো রেজাল্ট করতো। ভবিষ্যতে ডাক্তার হবে তাই বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পড়াশুনা করতো। সেই মেধাবী সহপাঠিকে এভাবেই মেরে ফেললো তা আমরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছি না। আমরা ওই ঘাতক মিলনের ফাসি চাই। এ সময় অনেক সহপাঠি কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে।

নবগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহদেব চন্দ্র বাড়ৈ বলেন, হাসি খুশি নিতু এই স্কুলের মাঠে হেসে খেলে ছোটাছুটি করতো। আর আজ তার নিথর দেহ এসেছে। আমরা এটা কিভাবে মেনে নেই।

তিনি আরো বলেন, আজ আমরা ঘাতকের বিচারের দাবীতে বিদ্যালয় মাঠে মানববন্ধন করেছি। পরবর্তীতে ওর বিচারের দাবিতে আমরা আরো কর্মসূচি হাতে নিবো।

এদিকে সোমবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে নিতুর লাশ গ্রামে এসে পৌঁছায়। প্রথমে লাশটি নবগ্রাম হাই স্কুল মাঠে রাখা হয়। সেখানে নিতুর লাশ পৌঁছালে তার সহপাঠিরাসহ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। পরে নিতুর নিজ বাড়িতে লাশটি নেওয়া হলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। মা-বাবা, আত্মীয়-স্বজনসহ গ্রামবাসী কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

নিহত নিতুর মা নিপা মন্ডল কেদে কেদে বলেন, আমার মেয়ের ইচ্ছা ছিল ডাক্তার হয়ে গ্রামের মানুষকে বিনা টাকায় চিকিৎসা করাবে। যারা ওষুধ কিনতে পারে না, তাদের ওষুধ কিনে দিবে। আর ওর ছোট ভাইকেও অনেক দূর পড়াশুনা করাবে। স্কুলের অনেক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে অনেক পুরস্কার পেয়েছে। আমার হাসি খুশি মেয়েটাকে এভাবে মরতে হবে ভাবিনি। আমার সব শেষ হয়ে গেলো। এখনও এভাবেই বিলাপ করছে তার মা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্কুলছাত্রী নিতুর খুনের ঘটনায় ব্যবহৃত ছুরিটি আজ সোমবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলের পাশের একটি পুকুর থেকে উদ্ধার করে। এ ছাড়াও গতকাল রবিবার রাতে এ ঘটনায় নিতুর বাবা নির্মল মন্ডল বাদী হয়ে মিলন মন্ডলকে আসামি করে ডাসার থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বায়জিদ মৃধা বলেন, খুনের ঘটনায় ব্যবহৃত ছুরিটি উদ্ধার করা হয়েছে। আসামি মিলন মন্ডলকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।
 


মন্তব্য