kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'মোবাইল-সহকর্মীদের তথ্যে জানা যাবে আত্মহত্যার কারণ'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৫:৩৬



'মোবাইল-সহকর্মীদের তথ্যে জানা যাবে আত্মহত্যার কারণ'

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহানের কক্ষ থেকে জব্দ করা তিনটি মোবাইল ফোনের তথ্য সংগ্রহ এবং সহকর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদের মধ্য দিয়েই আত্মহত্যার কারণ বেরিয়ে আসবে বলে মনে করছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ব্রজ গোপাল। ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে এবং মোবাইলের তথ্য চেয়ে অপারেটরদের অনুরোধ করাও হয়েছে বলে জানান তিনি।

তদন্তের অগ্রগতি বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মতিহার থানার এসআই ব্রজ গোপাল বলেন, তিনি কী কারণে আত্মহত্যা করেছেন সেটি জানার জন্য আমরা প্রাথমিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সাথে কথা বলা শুরু করেছি। আজ সোমবার ভিসেরার জন্য নমুনাগুলো ঢাকায় পাঠানো হবে। সেখান থেকে প্রতিবেদন পেলে আমরা অনেকটা পরিষ্কার হতে পারবো।

তিনি আরও বলেন, সহকর্মীদের সাথে কথা বলার মধ্য দিয়ে তার আত্মহত্যার সম্ভাব্য কারণ ও আত্মহত্যার পেছনে কারও প্ররোচণা আছে কিনা সেগুলো বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেন, তার মোবাইলে কার কী কথা হয়েছে সেসবের তথ্য চেয়ে মোবাইল ফোন অপারেটরদের কাছে আবেদন করা হয়েছে। মামলাটি আমরা গুরুত্ব দিয়েই দেখছি। আমি মামলার তদন্তকারী। কিন্তু আমার সাথে এসি স্যার ও ডিসি স্যারও তদন্ত করছেন। সুইসাইড নোটটি তার নিজের হাতের লেখা কিনা সেটিও পরীক্ষা করা হবে।

গত ৯ সেপ্টেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জুবেরী ভবনের দরজা ভেঙে নিজ কক্ষ থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহানের (৪৫) মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। বিকেল ৫টার দিকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এরপর তদন্তের জন্য তার রুম থেকে বেশকিছু জিনিস জব্দ করা হয়। জব্দকৃত তালিকায় রয়েছে, সুইসাইড নোট, ল্যাপটপ ২টি, মোবাইল ফোন ৩টি, ঘুমের ট্যাবলেট (ইজিএম), তরল পদার্থ, পেনড্রাইভ ৪টি, বালিশের কভার ২টি, বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ও শেষ সময়ে তার পরিহিত কাপড়ের কাটা অংশ। জুবেরী ভবনের ৩০৩ নম্বর কক্ষটি বর্তমানে সিলগালা করা আছে।

 


মন্তব্য